সংরক্ষণ শীল কৃষি পদ্ধতি নিয়ে মাঠ দিবস পালন হল দিনহাটায়

মনিরুল হক, দিনহাটা: সংরক্ষণ শীল কৃষি পদ্ধতিকে সাধারণ কৃষকদের কাছে গ্রহণযোগ্য করে তূলতে ‘ মাঠ দিবস ’ অনুষ্ঠিত হল দিনহাটায়। মঙ্গলবার দিনহাটা ২ নং ব্লকের দুর্গানগর নব প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে এই অনুষ্ঠান হয়। সাতমাইল সতীশ ক্লাব ও পাঠাগারের সহযোগিতায় এবং সবুজ বিপ্লব প্রোডিউসার অর্গানাইজেশনের ব্যবস্থাপনায় এই অনুষ্ঠান হয়। এই অনুষ্ঠানে দিনহাটা- ২ নং ব্লক কৃষি দপ্তরের পক্ষ থেকে বিনা কর্ষণে ভুট্টা চাষের একটি অত্যাধুনিক যন্ত্র সবুজ বিপ্লব প্রোডিউসার অর্গানাইজেশনের হাতে তুলে দেওয়া হয় বলে জানা গিয়েছে। সেখানে উপস্থিত ছিলেন- মহকুমা কৃষি আধিকারিক যাদব চন্দ্র মন্ডল, সহ কৃষি আধিকারিক অনীশ দাস , সহ কৃষি আধিকারিক ডঃ প্রবোধ মন্ডল, উত্তর বঙ্গ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক অপূর্ব কুমার চৌধুরী, ডাঃ বিধান রায় কৃষি বিজ্ঞান কেন্দ্রর বিকাশ রায় নাবার্ডের কর্তা আশীষ দাস, সাতমাইল সতীশ ক্লাবের সম্পাদক অমল রায় প্রমুখ। এছাড়া আশেপাশের এলাকার প্রায় চার শতাধিক কৃষক সহ অন্যান্য ফার্মাস ক্লাবের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

কৃষকদের থেকে জানা গিয়েছে, বর্তমান সময়ে কৃষিকাজের জন্য ঠিকমত শ্রমিক পাওয়া যায়না। ফলনও কমে যাচ্ছে । জলস্তর ক্রমশই নিচের দিকে নেমে যাওয়ার কারনে জলের সমস্যাও রয়েছে। এরকম পরিস্থিতিতে উন্নত কৃষি প্রযুক্তি প্রয়োগ আবশ্যিক বলে মনে করা হচ্ছে । কৃষি বিজ্ঞানীদের পরামর্শে শুরু হয়েছে সংরক্ষণ শীল কৃষি বিষয়ক ব্যবস্থাপনা । জমিকে বার বার কর্ষন করলে জমির প্রভুত ক্ষতি হয় বলে জানা গিয়েছে। তাই বর্তমান সময়ে কৃষি বিজ্ঞানীরা বিনা কর্ষণে চাষ করার উপরেই গুরুত্ব দিয়েছেন। রবি মরশুমে ভুট্টা , ডাল, সরিষা,গম প্রভৃতি শস্য গুলি অনায়াসেই বিনা কর্ষণে চাষ করা সম্ভব বলে জানা গিয়েছে। ইতিমধ্যে বিনা কর্ষনে ভুট্টা,গম ইত্যাদি চাষ শুরু হয়েছে দিনহাটা-২ নং ব্লকের বিভিন্ন এলাকায়। এই পদ্ধতিতে চাষের ক্ষেত্রে পশ্চিমবঙ্গের মধ্যে কোচবিহার জেলার দিনহাটা-২ নং ব্লক অনেকটাই সফল। এই পদ্ধতিতে চাষ করা হলে শ্রমিক, সময়, অর্থ সকল দিক থেকে সাশ্রয় সম্ভব বলে জানা গিয়েছে। সবুজ বিপ্লব প্রোডিউসার অর্গানাইজেশনের সম্পাদক মোজাহিদ হোসেন জানান,সংরক্ষণ শীল কৃষির এই পদ্ধতিকে সফল করতে আমরা উদ্যোগী ভূমিকা পালন করবো ।