বাবরি মসজিদ ধ্বংসের দিনটিকে স্মরণ করে সংহতি দিবস পালন করল তৃণমূল যুব কংগ্রেস

কোচবিহার, ৬ ডিসেম্বরঃ বিজেপির গণতন্ত্র বাঁচাও যাত্রার একদিন আগে কোচবিহার শহরে মিছিল করল তৃণমূল যুব কংগ্রেস। বৃহস্পতিবার দুপুরে বাবরি মসজিদ ধ্বংসের দিনটিকে স্মরণ করে প্রত্যেক বছর সংহতি দিবস পালন করেন তৃণমূল কংগ্রেস। এদিনের ওই মিছিল শুরু হয় স্টেশন মোড় থেকে শহরের বিভিন্ন রাস্তা পরিক্রমা করে শেষ হয় স্টেশন মোড়েই। এদিনওই মিছিলে উপস্থিত ছিলেন কোচবিহার জেলা তৃনমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি তথা সাংসদ পার্থ প্রতিম রায়, কোচবিহার জেলা তৃনমূল যুব কংগ্রেসের সাধারন সম্পাদক নিশীথ প্রামাণিক, দিনহাটা পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য জিল জালাল এক্রাম, যুব নেতা অভিজিৎ দে ভৌমিক, আবুতালেব আজাদ, অজয় রায়, আরিফ হোসেন, আনন্দ বর্মণ, আশরাফ হোসেন সহ আরও অনেকে।

তৃণমূল যুব কংগ্রেসের কোচবিহার জেলা সভাপতি সাংসদ পার্থ প্রতিম রায় বলেন, “১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর ভারতীয় গণতন্ত্রের ইতিহাসে এক উল্লেখযোগ্য দিন। বিজেপি দলের নেতাকর্মী ও আরএসএস এবং বিশ্ব হিন্দু পরিষদের উগ্রপন্থীরা বাবরি মসজিদ ধ্বংসে করেছে। মন্দির-মসজিত নিয়ে রাজনীতি করা সাম্প্রদায়িক বিজেপির বিরুদ্ধে তৃণমূল যুব কংগ্রেস প্রত্যেক বছর এই সংহতি দিবস পালন করে থাকি। এবারও দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, যুব নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে আমরা সংহতি দিবসে পালনের উদ্দেশে এই মিছিল করলাম।

 প্রসঙ্গত, ৭ ডিসেম্বর কোচবিহার থেকে বিজেপির গণতন্ত্র বাঁচাও যাত্রা শুরু হবে। নাটাবাড়ী বিধানসভা কেন্দ্রের ঝিনইডাঙ্গা এলাকায় সভা করে ওই যাত্রার সূচনা করবেন বিজেপির সর্ব ভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। ওই সভার প্রস্তুতি নিতে ইতিমধ্যেই বিজেপির এক ঝাঁক কেন্দ্রীয় ও রাজ্য নেতা কোচবিহারে এসে উপস্থিত হয়েছেন। তারা বিভিন্ন জায়গায় গিয়ে সভায় আসার জন্য বাসিন্দাদের মধ্যে প্রচার চালাচ্ছেন।