১৬ দলীয় নক আউট ফুটবল টুনামেন্ট প্রতিযোগিতা প্রান্তিক বাজারে

দিনহাটা, ১২ আগস্টঃ ১৬ দলীয় নক আউট ফুটবল টুনামেন্ট প্রতিযোগিতা শুভ সুচনা হল রবিবার। চিরদুদ্দর্ম সংঘের উদ্যোগে এদিন ওই ১৬ দলীয় নক আউট ফুটবল টুনামেন্ট প্রতিযোগিতা দিনহাটা ১নং ব্লকের পুটিমারি ১ নং গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত প্রান্তিক বাজার এলাকায় মন্দিরের মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। এদিন ওই প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন কোচবিহার জেলা পরিষদের নব নির্বাচিত সদস্য কৃষ্ণকান্ত বর্মণ, আনন্দ বর্মণ( সৌজন্য), মফিজুল হক, রেজাউল হক, রতন বর্মণ, জাকির হোসেন রেজাউল খান, চিরদুদ্দর্ম সংঘের সকল সদস্য সহ আরও অনেক।

জানা গেছে, এই প্রতিযোগিতায় মোট ১৬ টি দল অংশ গ্রহণ করেছেন। এদিন খেলায় অংশগ্রহন কারি দল গুলির নাম হল ১) শিলচর (আলিপুর দুয়ার) ২)কালমাটি (বামনহাট) ৩)বোলডাঙ্গা (ভেটাগুড়ি) ৪)শৈলমারি(দিনহাটা) ৫)হিসেবিটারি ৬)মাতালহাট ৭)ভেটাগুড়ি সাউথ কর্নার ৮)সবুজ সংঘ ৯)চিরদুদ্দর্ম সংঘ ১০) হাওয়ার হাট( কোচবিহার) ১১) সম্প্রীতি ক্লাব( দিনহাটা) ১২) জরাবাড়ি ১৩) ঘুঘুমারি (কোচবিহার) ১৪) ফ্রেন্ড ইউনিট ১৫) গোসানিমারি ১৬) ১নং গেট একাদশ।

আজকের খেলার শুরুতে প্রথম শিলচর বনাম কালমাটি দুটি দলকে দিয়ে খেলার শুভ সুচনা করেন কোচবিহার জেলা পরিষদের নব নির্বাচিত সদস্য কৃষ্ণকান্ত বর্মণ, আনন্দ বর্মণ। এদিন এই খেলায় ফুটবল প্রেমীদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো।

এসএফআইয়ের প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে ফুটবল প্রতিযোগিতা দিনহাটায়

দিনহাটা, ১২ আগস্ট: সংগঠিত ছাত্র আন্দোলনের প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষ্যে দিনহাটায় অনুষ্ঠিত হল কমরেড বীরেন পোদ্দার স্মৃতি ফুটবল টুর্নামেন্ট। এস এফ আই ও ডি ওয়াই এফ আইয়ের পরিচালনায় রবিবার দিনহাটা বোর্ডিং পাড়া মাঠে এই ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়। টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করেন সিপিএমের প্রাক্তন কোচবিহার জেলা সম্পাদক তথা প্রাক্তন সংসদ তারিনী রায়। উপস্থিত ছিলেন গন আন্দোলনের নেতা তারাপদ বর্মণ, এসএফআইয়ের কোচবিহার জেলা সম্পাদক শুভ্রালোক দাস, বিশ্বনাথ চৌধুরী, যুব নেতা ইমদাদুল হক প্রমুখ।

এদিনের এই ফুটবল টুর্নামেন্টে দিনহাটার বিভিন্ন এলাকার ১২ টি ফুটবল দল অংশ নেয়। ফাইনাল খেলায় বড় আটিয়াবাড়ি একাদশ ১-০ গোলে বড়শাকদল একাদশ ফুটবল দলকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়। বিজয়ী দলের হাতে ট্রফি তুলে দেওয়া হয়।

সারাদিনের সেরা খবর – ১২ আগষ্ট ২০১৮

সারাদিনের বাছাই করা খবর
প্রতিদিন আমাদের ওয়েবসাইট ভিসিট করুন প্রতিদিনের গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি পাবার জন্য।

বিশ্ব হাতি দিবস পালিত হল জলদাপাড়ায়

জলদাপাড়া, ১২ আগস্টঃ আজ বিশ্ব হাতি দিবস। প্রতি বছর ১২ আগস্ট বিশ্ব হাতি দিবস হিসেবে সারাবিশ্বে পালিত হয়। এদিন জলদাপাড়া ফরেস্টে ওই হাতি দিবস পালন করা হয়। এদিন ওই হাতি দিবস পালনে উপস্থিত ছিলেন কোচবিহার মাউন্টেন্স ক্লাবের সকল সদস্যরা, হাতির মাউথ, জলদাপাড়া ফরেস্টে বিভিন্ন আধিকারিক সহ আরও অনেকে।

এদিন জলদাপাড়া ফরেস্টের এক আধিকারিক বলেন, সারা পৃথিবীতে স্থলবাসী প্রাণীদের মধ্যে সর্ববৃহৎ প্রাণী হাতি। তবে ক্রমাগত আবাসস্থল ধ্বংস, খাদ্যাভাব এবং মানুষের সাথে দ্বন্দ্বে দিন দিন এদের সংখ্যা কমে যাচ্ছে। হাতি সংরক্ষণের জন্য সচেতনতা তৈরি করতে প্রতি বছর আগস্ট মাসের ১২ তারিখ পালন করা হয় বিশ্ব হাতি দিবস।

পরিবেশবিদরা বলছেন, হাতির আবাসস্থলের ওপর মানুষের সংঘাত বেড়ে যাওয়ায় বিপন্ন প্রজাতির তালিকায় এখন যুক্ত হয়েছে হাতি। তাই মানুষকেই বিশালদেহী হাতির সবচেয়ে বড় শত্রু বলে দায়ী করছেন তারা।

উড়ালপুল পরিদর্শন করলেন ন্যাশনাল হাইওয়ে অথরিটির কর্তারা

বিশ্বজিৎ সরকার, শিলিগুড়িঃ শিলিগুড়িতে ভেঙ্গে পরা উড়ালপুল পরিদর্শন করলেন ন্যাশনাল হাইওয়ে অথরিটির কর্তারা। গত শনিবার রাতে শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদের অন্তরর্গত ফাঁসিদেওয়ার কান্তিভিটায় অচমাই ভেঙে পড়ে নবনির্মিত উড়ালপুলটি। যদিও সেই ঘটনার কোন হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

তবে স্থানীয়রা অভিযোগ, খুব নিম্নমানের মেটেরিয়াল দিয়ে তৈরি করা হছিল্ল। সেই কারনে ভঙ্গে পরে ওই নির্মীয়মাণ উড়ালপুলটি। আজ নির্মীয়মান উড়ালপুল ভেঙ্গে পরার কারণ খুঁজতে শিলিগুড়িতে আশে এনএ এইচ আই এর কর্তৃপক্ষ। ঠিক কি কারণে নব নির্মিত উড়ালপুলের একাংশ ভেঙে পড়ল তা এখনো বুঝে উঠতে পারছে না এনএ এইচ আই। তাই বিভিন্ন দিক থেকে ছবি তুলে, রিপোর্ট সংগ্রহ করছেন এনএইচএআই এর টেকনিক্যাল ম্যানেজার প্রদ্যুৎ দাসগুপ্ত।

তিনি জানান, সম্পূর্ণটাই তদন্ত সাপেক্ষ। তবে এখনো পর্যন্ত কোন ব্যক্তি কে শোকজ করা হয়নি। আপাতত কাজ বন্ধ আছে। ঠিক কী কারনে এমন ঘটনা ঘটেছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অপরদিকে এদিন দুপুরে মুম্বাই থেকে ছুটে আসেন এলআন্ডটির টেকনিক্যাল হেড পি কে গুহ। তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এরপর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি জানান, কী কারণে এই ঘটনা ঘটল তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তবে প্রথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে যে কোন ভাড়ি লড়ি বা কেন্টেনারের ধাক্কা লেগেই এমন হয়েছে। যদিও নব নির্মিত উড়ালপুলের একাংশের মেটেরিয়ালের গুনমত মান পরীক্ষা করা হচ্ছে। তাতে কোন সমস্যা নেই।

স্বেচ্ছায় রক্তদান শিবির অনুষ্ঠিত হল দিনহাটায়

মনিরুল হক, দিনহাটা: মুমূর্ষু রোগীদের বাঁচাতে স্বেচ্ছায় রক্তদান শিবির অনুষ্ঠিত হল দিনহাটায়। তোর্সা সাহিত্য সংস্থার উদ্যোগে রবিবার দিনহাটা হাই স্কুলে এই রক্তদান শিবির অনুষ্ঠিত হয়। এদিনের ওই রক্তদান শিবিরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালের সুপার ডাঃ রনজিৎ মন্ডল, চিকিৎসক ডাঃ উজ্জ্বল আচার্য, দিনহাটা থানার আই,সি সঞ্জয় দত্ত, শিক্ষক সত্যজিৎ কার্যী, বিভুরঞ্জন সাহা সহ আরও অনেকে।

দিনহাটা থানার আই,সি সঞ্জয় দত্ত বলেন, “রক্তদান ধনী-গরীবের বৈষম্য, সাদা-কালোর ভেদাভেদ এবং ধর্মীয় ব্যবধান ঘুচিয়ে দেয়। রক্তদান মানব জাতির জন্য এক মহান সেবাকর্ম। এক ব্যাগ রক্তই একজন মুমূর্ষু ব্যক্তির জীবন বাঁচাতে পারে। এ জন্য আমাদের সকলকে রক্তদানে এগিয়ে আসতে হবে এবং এ ব্যাপারে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।”

এদিনের সংস্থার উদ্যোক্তা বলেন,“রক্তদান একটি মহৎ কাজ। এতে জাগ্রত করে মানবিক অনুভূতি! রক্তদান করা মানে মানবতার কল্যাণে পাশে থাকা। আমাদের এক ব্যাগ রক্ত হাসি ফোটাতে পারে হাজারো মুমূর্ষু ব্যক্তিদের জীবন বাঁচতে পারে। যিনি রক্তদান করেন তিনি মহান কাজ করেন। কাজেই সকলেই এই রক্ত দানের জন্য এগিয়ে আসা উচিত। এদিনের ওই রক্তদান শিবিরে ৩০ জন রক্তদান দান করেছে। তাদের মধ্যে একটা বড় অংশ ছিল মহিলা।

ভিয়েতনাম রুপো জিতলেন জয়রাম

ওয়েব ডেস্ক, ১২ আগস্টঃ ভিয়েতনাম রুপো জিতলেন ভারতীয় তারকা। টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই ছন্দে ছিলেন জয়রাম৷ প্রি-কোয়ার্টারে শীর্ষবাছাই ইগোর কোয়েলহোকে স্ট্রেট গেমে পরাস্ত করেছিলেন ৩০ বছর বয়সী ভারতীয় তারকা৷ ফাইনাল পর্যন্ত যাত্রাপথে একটি গেমও খোয়াননি তিনি৷ তবে ফাইনালে নিজের পরিচিত ফর্মের ধারেকাছে ছিলেন না জয়রাম৷ বিশ্বের ৭৯ নম্বর ইন্দোনেশিয়ান প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে একবারের জন্যও সুবিধা করে উঠতে পারেননি বিশ্বব়্যাংকিংয়ের ৯৩ নম্বরে থাকা অজয়৷

৩৪ মিনিটের লড়াইয়ে ১৪-২১, ১০-২১ গেমে রুসতাভিতোর কাছে খেতাবি লড়াই হেরে বসেন জয়রাম৷ ফলে এবারের মতো রুপোর পদক নিয়ে দেশে ফিরতে বাধ্য হচ্ছেন ভারতী তারকা।

সূর্যয় পৌঁছতে ঐতিহাসিক অভিযানে নাসা

ওয়েব ডেস্ক, ১২ আগস্টঃ ঐতিহাসিক মিশনের সাক্ষী থাকল গোটা দুনিয়া। অবেশেষে নাসার সূর্য অভিযান সফল৷ রবিবার সফল উৎক্ষেপণ হল ‘টাচ দ্য সান’মিশনের মহাকাশযানের৷ শনিবার উৎক্ষেপনের সময়ই থমকে যায় মহাকাশযানটি৷ যান্ত্রিক গোলোযোগের জন্য থেমে যায় সেই অভিযান। রবিবার সমস্ত বাঁধা কাটিয়ে ভোর সাড়ে তিনটে ফ্লোরিডা থেকে উৎক্ষেপণ হয় মহাকাশযানটির৷ ভারতীয় সময় দুপুর ১টা ৪ মিনিট।

বিজ্ঞানের জগতে প্রথমবার সূর্য অভিযানের উদ্দেশে রওনা হল কোনও স্পেসক্র্যাফ্ট। সূর্যের সবথেকে কাছে পৌঁছবে এই মহাকাশযান। তুলে আনবে সৃষ্টির আদি রহস্য। সূর্যের প্রখর তাপ ও রশ্মি থেকে বাঁচতে বিশেষ ভাবে বানানো হয়েছে পার্কার সোলার মহাকাশযান। মহাকাশে সূর্য থেকে এই মহাকাশযান ৬১ লাখ ২০ হাজার কিলোমিটার দূরে থেকে তথ্য সংগ্রহ করবে। যেখানে তাপমাত্রা থাকবে ১৩০০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড। এই মহাকাশযানের গতিবেগ ১৯০ কিলোমিটার প্রতি সেকেন্ড। সাত বছর ধরে সূর্যকে ২৪বার প্রদক্ষিণ করবে সোলার পার্ক। এটি ডেলটা ফোর হেভি রকেট। ভারতীয় মূল্যে মহাকাশযানটি উৎক্ষেপনে খরচ হয়েছে মোট ১০,৩০০ কোটি টাকা৷

পেটলা বাজারে দোকান ভাঙচুর দুষ্কৃতিদের, প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ব্যবসায়ীদের

দিনহাটা, ১২ আগস্টঃ দোকানপাট ভাঙচুরের ঘটনার প্রতিবাদে আজ পেটলা বাজারে বিক্ষোভ মিছিল করল ব্যবসায়ী সমিতি। শনিবার রাতে একদল দুষ্কৃতি পেটলা বাজারের কয়েকটি দোকান ভাঙচুর করে বলে অভিযোগ। পেটলা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির কেশিয়ারের বাড়িতেও দুষ্কৃতিরা ভাঙচুর চালায় বলে অভিযোগ।

এই ঘটনার জেরে বাজারের ব্যবসায়ীদের মধ্যে প্রচণ্ড ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। ঘটনার প্রতিবাদে আজ তারা পেটলা বাজারে বিক্ষোভ ও মিছিল শুরু করেন । এর জেরে এলাকায় প্রচণ্ড উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে দিনহাটা থানার আই.সি সঞ্জয় দত্ত ঘটনাস্থলে পৌছান এবং ব্যবসায়ীদের সঙ্গে সমস্যা নিয়ে আলোচনা করেন। ব্যবসায়ীদের তরফ থেকে দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে এদিন পুলিশের কাছে একটি ডেপুটেশন দেওয়া হয়।

পেটলা বাজার ব্যবসায়ী সমিতি সম্পাদক দীপাল কুমার রায় বলেন, “মাঝে মধ্যেই পেটলা বাজারের ব্যবসায়ীদের দোকানের উপর দুষ্কৃতিদের হামলা হচ্ছে। গতকাল রাত ২ টা নাগাদ একদল দুষ্কৃতি চারটি দোকান ও ব্যবসায়ী সমিতির ক্যাশিয়ারের বাড়িতে ভাংচুর করে। পুলিশ প্রশাসনের নিষ্ক্রিয়তায় এনরনের ঘটনা ঘটেছে। দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে দিনহাটা থানার আই, সির কাছে আমরা ডেপুটেশন দেব।”

ল’ ক্লার্কস অ্যাসোসিয়েশনের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন মাথাভাঙ্গায়

মাথাভাঙ্গা, ১২ আগস্টঃ পশ্চিমবঙ্গ ল’ ক্লার্কস অ্যাসোসিয়েশনের মাথাভাঙ্গা মহকুমা কমিটির ১৩ তম ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হল। আজ মাথাভাঙ্গার নজরুল সদনে এই সম্মেলন হয়। এদিনের সম্মেলনের উদ্বোধন করেন সংগঠনের রাজ্য কমিটির সদস্য গোলজার মিঞা। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন মাথাভাঙ্গা মহকুমা আদালতের এ ডি জে অজয় কুমার সিং, শীতলখুচির বিধায়ক হিতেন বর্মন, পুরসভার চেয়ারম্যান লক্ষপতি প্রামাণিক ও অন্যান্যরা।

সংগঠনের মাথাভাঙ্গা মহকুমা ইউনিটের সম্পাদক আতিয়ার রহমান বলেন, “তিন বছর পরপর এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। আলাপ আলোচনার মাধ্যমে কমিটি গঠন হবে। ল’ ক্লার্কসদের জন্য ওয়েল ফেয়ার স্কিম চালু করার দাবি জানান তিনি। দাবি পূরণ না হলে ভবিষ্যতে বৃহত্তর আন্দোলনে নামার কথা জানিয়েছেন তিনি।”

মশা বাহিত রোগ আটকাতে স্বনির্ভর গোষ্ঠীকে কাজে লাগাবে কোচবিহার পুরসভা

কোচবিহার, ১২ আগস্টঃ পৌর এলাকায় মশার বংশবৃদ্ধি আটকাতে এবং মশা বাহিত রোগ যাতে না ছড়ায়, তার উপর নজর রাখতে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের দ্বারা প্রতিদিন রিপোর্ট নেবে কোচবিহার পুরসভা। এরজন্য প্রতিদিন স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের টিম প্রতি ওয়ার্ডে ঘুরে পরিষ্কার পরিছন্নতার বিষয়টি দেখবে বলে জানান চেয়ারম্যান ভূষণ সিং। আজ কোচবিহার নেতাজী ইন্ডোর স্টেডিয়ামে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয় পুরসভার পক্ষ থেকে। এদিনের সভায় মশা দমন সহ পুর এলাকার বিভিন্ন পরিসেবা নিয়েও আলোচনা হয়। এদিনের আলোচনা সভাতে কাউন্সিলার, স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলা, সাধারণ নাগরিকরা উপস্থিত ছিলেন। কোচবিহার শহরকে পরিষ্কার পরিছন্ন করে তোলা এবং রাস্তাঘাট, আলো, পুকুর সংস্কার সহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হয়।

চেয়ারম্যান ভূষণ সিং বলেন, “স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের দ্বারা পুর এলাকায় কোন বাড়িতে বা রাস্তা ঘাটে জল জমে আছে কিনা সেই বিষয়ে দেখার জন্য আমরা টিম পাঠাব। তারা এসে আমাদের রিপোর্ট দেবে। পুরসভার পক্ষ থেকে তার পর প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে। মশা মারার গ্যাস, তেল, পাউডার ছিটানো হবে। পুর এলাকার বিভিন্ন পরিসেবা নিয়ে আজকের এই সভার আয়োজন করা হয়েছে।”

বিএড কলেজের হীরক জয়ন্তীর সমাপ্তি অনুষ্ঠানে উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী

জলপাইগুড়ি, ১২ আগস্টঃ জলপাইগুড়ি আনন্দ চন্দ্র( এ সি) বি এড কলেজের হীরক জয়ন্তী বর্ষের সমাপ্তি অনুষ্ঠানে যোগ দিলেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। আজ এই অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন কোচবিহারের সাংসদ পার্থ প্রতিম রায়, কোচবিহার পঞ্চানন বর্মা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য দেব কুমার মুখোপাধ্যায় ও আনন্দ চন্দ্র বি এড কলেজের শিক্ষক শিক্ষিকারা। দুই দিন ধরে এই সমাপ্তি অনুষ্ঠান চলবে। আজ প্রদীপ জ্বালিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা করেন মন্ত্রী রবীন্দ্র নাথ ঘোষ।

উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বলেন, “জলপাইগুড়ি এ সি বি এড কলেজের হীরক জয়ন্তী বর্ষের সমাপ্তি দিবস। যারা আয়োজক, তারা আমাকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিল। আমি এসেছি। ভালো লাগছে। এখানে ৫০ জন ছাত্র এখানে বি এড করে।

এখানে আসন যাতে ১০০ করা যায় তার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেছি। ওদের পরিকাঠামোগত কিছু সমস্যা রয়েছে, আমি বলেছি আপনারা আবেদন করুন। আমাদের ইঞ্জিনিয়ার খতিয়ে দেখে যতটা করা সম্ভব আমরা করে দেব।”