সারাদিনের সেরা খবর – ১৫ আগষ্ট ২০১৮

style=”text-align: center;”>সারাদিনের বাছাই করা খবর
প্রতিদিন আমাদের ওয়েবসাইট ভিসিট করুন প্রতিদিনের গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি পাবার জন্য।

অটলবিহারী বাজপেয়ীর শারীরিক অবস্থা সংকটজনক, হাসপাতালে গেলেন মোদী

ওয়েব ডেস্ক, ১৫ আগস্টঃ প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর শারীরিক অবস্থা সংকটজনক। আর সেটা জানতে পেরেই বুধবার তাঁর সঙ্গে দেখা করতে এইমস হাসপাতালে গেলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।সেখানে গিয়ে কথা বলেন বাজপেয়ীর পরিবার-পরিজনদের সঙ্গে৷ চিকিৎসরত ডাক্তারদের কাছ থেকে তার শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে খোঁজখবর নেন৷

উল্লেখ্য, মূত্রনালীতে সংক্রমণ নিয়ে দিল্লি এইমস হাসপাতালের ভর্তি হন বাজপেয়ী। বুধবার হাসপাতাল সুত্রে জানা যায়, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর অটলবিহারী বাজপেয়ীর শারীরিক অবস্থা সংকটজনক। গত ১৫ বছর ধরে অটলবিহারীর চিকিৎসা করছেন এইমসের চিকিৎসক রণদীপ গুলেরিয়া। তিনি এবার চিকিৎসক দলের দায়িত্বে রয়েছেন। বর্তমানে একটি মাত্র কিডনিই কাজ করছে বাজপেয়ীয়। এছাড়াও তাঁর ফুসফুসে সংক্রমণ রয়েছে। রয়েছে সুগার। ২০০৯ সাল একবার হার্ট অ্যাটাক হয়ে গিয়েছে। যার ফলে বাজপেয়ীর স্মৃতিভ্রমও হয়েছে। তাঁকে রাখা হয়েছে কার্ডিওলজির আইসিসিইউতে।

স্বাধীনতা উদযাপনে অথর্ব এক বৃদ্ধার অন্যন্য নজির গড়ে তোলার ভিডিও ভাইরাল

ওয়েব ডেক্স, ১৫ আগস্টঃ পড়নে একটা ‘নাইট্রি’, কোমরে বাঁধা রয়েছে গামছা। হাতে দু-তিনটি ব্যাগ। তাতে কি আছে বোঝা যাচ্ছিল না। বয়সের ভারে প্রায় অথর্ব হয়ে পড়েছেন। তবু কোমর ভাঁজ করে একটা পায়ের উপড়ে হাত ভর দিয়ে কোন রকমে হেঁটে চলছেন। মুখে তাঁর একটাই স্লোগান ‘বন্দেমাতরম’। এরকম ভাবেই এক বৃদ্ধা এগিয়ে আসছেন স্বাধীনতা দিবসে পতাকা উত্তোলনের এক সরকারি অনুষ্ঠানের দিকে। সেখানে উপস্থিত অথিতি ও ‘গার্ড অফ অনার’ দেওয়ার জন্য লাইন দিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা পুলিশ কর্মীরা তখন কার্যত অবাক দৃষ্টিতে তাকিয়ে রয়েছেন। কি করা উচিত যেন কেউ বুঝে উঠতে পারছেন না। আচমকা একজন আটকাতে গেলেন বৃদ্ধাকে। তাঁকে এক ধমক দিয়ে সরিয়ে দিলেন তিনি। পেছন আওয়াজ আসল আসতে দিন। বৃদ্ধা এলেন এবং ফুল চেয়ে নিয়ে নিলেন। পতাকা উত্তোলনের বেদীর সামনে গিয়ে কয়েকবার হাত ঘুরিয়ে সেখানে ফুল দিলেন। মাটিতে সাজানোয় জন্য ব্যবহার করা আবীর নিয়ে কপালে দিলেন। আর একাধিকবার উচ্চারণ করলেন, “ বন্দেমাতরম, সুজলাং সুফলাং”।

আজ এমনি একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। সেখানে দাবী করা হয়েছে ঝাড়গ্রাম কোর্ট চত্বরে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে পতাকা উত্তোলনের সময় ওই ঘটনা ঘটেছে। স্বাধীনতা দিবস নিয়ে প্রত্যেক ভারত বাসীর আবেক জড়িয়ে আছে। দেশ জুড়ে কত ঘটনা ঘটছে। কেউ পতাকার অসম্মান করলে যেমন প্রতিবাদ করা হচ্ছে। তেমনি সম্মান জানানোর অন্যন্য নজির থাকলেও তাঁকে তুলে ধরা হচ্ছে গর্বের সাথে। গত বছর বন্যায় যখন অসমের এক শিক্ষক দুই শিশু ছাত্রকে নিয়ে এক বুক জলে দাঁড়িয়ে স্কুলের সামনে পতাকা উত্তোলনের ঘটনা গোটা দেশ জুড়ে শোরগোল ফেলে দিয়েছিল। এবার যেভাবে সোশ্যাল মিডিয়ায় ওই বৃদ্ধার স্বাধীনতা উদযাপনের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে, তাতে সেটাও কম কিছু নয়। যেন এভাবেই তিনি দেশ ভক্তির অন্যন্য নজির স্থাপন করলেন ভারতবাসীর কাছে।

ট্রাকের ধাক্কায় মৃত্যু ১, আহত ৫

শ্যাম বিশ্বাস, বসিরহাটঃ ট্রাকের ধাক্কায় মৃত্যু হল এক পথ যাত্রীর। ওই ঘটনায় আহত হয়েছে আরও ৫ জন। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার দুপুরে হাবড়া-গৌরবঙ্গ রোডে বুধোরহাটি বেলতলা মোড় এলাকায়। ওই ঘটনার খবর দেওয়া হয় পুলিশকে। ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যায় হাবড়া থানার পুলিশ। আহতদের উদ্ধার করে হাবড়া জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসক একজন কে মৃত বলে ঘোষণা করেন। ওই ঘটনায় স্থানীয় লোকজন পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান। ফলে ওই সড়কের যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে ওই পথ অবরোধ তুলে দিয়ে যানজট স্বাভাবিক করে দেয়। ঘটনার পর ট্রাকের চালক ও খালাসি পালাতক। ঘাতক ট্রাকটিকে আটক করে পুলিশ। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

পুলিশ সুত্রে জানা যায়, মৃতের নাম বাসুদেব ঘোষ(৫৫)। তার বাড়ি বুধোর হাটি মেঠো পাড়া এলাকায়। ওই ঘটনায় আরও ৫ জন আহত হয়েছে। তারা বর্তমান হাবড়া জেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। জানা গেছে, ওই ট্রাকটি বর্ধমান থেকে হাবড়া দিকে আসছিল। সেই সময় পথ দিয়ে যাচ্ছিল ছয়জন পথচারী। ট্রাকটি নিয়ন্ত্রন হারিয়ে ওই পথ যাত্রীদের ধাক্কা মারে। ওই ঘটনায় আহত হয় ছয়জন। খবর দেওয়া হয় থানায় পুলিশ এসে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসা চলাকালীন মৃত্যু হয় ওই ব্যক্তির। বাকি আহত পাঁচজন ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

নব নির্বাচিত ৬ সদস্য দল ছেড়ে তৃনমূলে, বিরোধী শূন্য গ্রাম পঞ্চায়েত

শ্যাম বিশ্বাস, বসিরহাটঃ স্বাধীনতা দিবসের দিনেই বড়ো ধাক্কা খেলো বিরোধীরা। উত্তর ২৪ পরগনার বাদুড়িয়া ব্লকের বাগজোলা গ্রাম পঞ্চায়েতের বাম ও কংগ্রেসের ছয় সদ্য জয়ী পঞ্চায়েত সদস্য দল ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিলেন। ওই জয়ী পঞ্চায়েত সদস্যদের সাথে প্রায় দুই হাজার কর্মী সমর্থক তৃনমূলে যোগ দিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। ওই ছয় নব নির্বাচিত পঞ্চায়েত সদস্য দল বদল কারায় বিরোধী শূন্য হয়ে গেল বাদুড়িয়া ব্লকের বাগজোলা গ্রাম পঞ্চায়েত।

বাগজোলা গ্রাম পঞ্চায়েতটি এর আগে বামফ্রন্ট ও কংগ্রেসের দখলে ছিল। সম্প্রতি শেষ হওয়া পঞ্চায়েত নির্বাচনে এই পঞ্চায়েতের মোট ১৬টি আসনের মধ্যে ১০টি আসনে জেতে তৃনমূল কংগ্রেস। ৬তি আসনে জেতে বাম ও কংগ্রেস জোট।

কোচবিহারে মাজিদ খুনে গ্রেফতার স্পীড বয়

কোচবিহার, ১৫ আগস্টঃ কোচবিহারের ছাত্র নেতা মাজিদ আনসারির খুনের ঘটনায় আরও ১ যুবককে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। ধৃত ওই যুবকের নাম সুরজ হোসেন ওরফে স্পীড বয়। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃত ওই যুবকের বাড়ি কোচবিহার পুরসভার ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের মসজিদ পাড়া এলাকায়। তাঁকে শীতলখুচির ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের একটি গ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। আগামীকাল ধৃতকে আদালতে তোলা হবে বলে জানা গিয়েছে।

গত ১৩ জুলাই কলেজ থেকে বাড়ি ফেরার সময় দুষ্কৃতিদের গুলিতে আহত হয় কোচবিহার কলেজের ছাত্র নেতা মাজিদ আনসারি। এরপর তাকে শিলিগুড়ির এক বেসরকারি নার্সিংহোমে ভর্তি করা হয়। টানা ১৩ দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়েও শেষ পর্যন্ত হার মানে মাজিদ। তার মৃত্যুতে জেলা জুড়ে প্রতিবাদ আন্দোলন শুরু হয় কোচবিহারে। এরপর খুনের ঘটনায় মদত দেওয়ার অভিযোগে মহম্মদ কলিম(মুন্না) খানকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এরপর মাজিদের খুনের ঘটনায় অন্যতম অভিযুক্ত জামিরুল হককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এরপরেও এই ছাত্রনেতা খুনের ঘটনায় বাকি অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের দাবিতে আন্দোলন ও মানববন্ধন আন্দোলন সংগঠিত করে কলেজের ছাত্রছাত্রী এবং তৃণমূল ছাত্র পরিষদের একাংশ।

এই অবস্থায় আজ এই খুনের ঘটনায় আরেক অভিযুক্ত সুরজ হোসেনকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। আগামী কাল ধৃতকে আদালতে তোলা হবে। কোচবিহারের পুলিশ সুপার ভোলা নাথ পাণ্ডে বলেন, মাজিদ খুনে অভিযুক্ত ছিল সুরজ হোসেন ওরফে স্পীড বয়। তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

১৬ দলীয় নক আউট ফুটবল টুর্নামেন্ট গুড়িয়াহাটির শিক্ষকপল্লীতে

কোচবিহার, ১৫ আগস্টঃ স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে দুই দিন ব্যাপী নক আউট ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হল কোচবিহার ১ নং ব্লকের গুড়িয়াহাটি গ্রাম পঞ্চায়েতের শিক্ষকপল্লীর মাঠে। স্থানীয় ছেলেরাই ১৬ দলীয় এই ফুটবল টুর্নামেন্টের আয়োজন করেছে। এলাকার বিশিষ্ট ব্যক্তিদের স্মৃতিতে এই ফুটবল টুর্নামেন্ট হয়। মঙ্গলবার থেকে এই টুর্নামেন্ট চালু হয়েছে। আজ খবর পাওয়া অবধি প্রথম সেমিফাইনালে মুখোমুখি হয়েছে বকুলতলা বনাম হরিজন যুব সংঘ।

উদ্যোক্তাদের মধ্যে তন্ময় বর্মন বলেন, “৪ বছর ধরে এই খেলা হয়ে আসছে। কোন এন্ট্রি ফি নেই। ১৬ টিমকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। দুই দিন ধরে খেলা হয়। বর্তমান সময়ে খেলাধূলার প্রতি ছেলে মেয়েদের ঝোঁক কমে গিয়েছে। তাই তাদের খেলা ধূলার প্রতি উৎসাহিত করতে আমরা নিজেরা মিলেই এই খেলার আয়োজন করে থাকি। গতকাল থেকে খেলা শুরু হয়েছে। এখন প্রথম সেমিফাইনাল চলছে বকুলতলা বনাম হরিজন যুব সংঘ। এখন পর্যন্ত কোন দল গোল করতে পারেনি।”

লন্ডনে জাতীয় পতাকা তুলে ৭২তম স্বাধীনতা দিবস উৎযাপন টিম ইন্ডিয়ার

ওয়েব ডেস্ক, ১৫ আগস্টঃ দেশের ৭২তম স্বাধীনতা দিবসে ব্রিটিশ ভূমিতে জাতীয় পতাকা তুলে স্বাধীনতা উৎযাপন করল ভারতীয় ক্রিকেট টিম৷ বুধবার নটিহ্যাংমে হোটেলের বাইরে ভারতের পতাকা উত্তোলন করেন ভারতীয় দলের কোচ রবি শাস্ত্রী৷ তাঁকে সঙ্গে দেন ভারতীয় দলের ক্যাপ্টেন কোহলি৷  এরপর একই সঙ্গে জাতীয় সঙ্গীত গেয়ে স্বাধীনতা দিবস উৎযাপন করেন পুরো টিম৷

তেরঙ্গা উত্তোলনের সময় বাংলার এক স্কুলে পাকিস্থান জিন্দাবাদের স্লোগান, চাঞ্চল্য

বহরমপুর, ১৫ আগস্টঃ স্কুল চত্বরে স্বাধীনতা দিবসের পতাকা তোলার প্রায় প্রস্তুত শেষ। কিছুক্ষণের মধ্যেই প্রধান শিক্ষক জাতীয় পতাকা উত্তোলন করবেন৷ এমন সময় এক ছাত্র স্লোগান দেন ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’। ঠিক সেই সময় ভারতের স্বাধীনতা দিবসে শত্রুভাবাপন্ন প্রতিবেশীর দেশের স্লোগান শুনে মনে হবে চারপাশ থেকে জঙ্গিরা ঘিরে ধরে ফেলল নাকি ? মুহূর্তের ঘোর কাটতেই না কাটতেই সে এক আবাক করা কাণ্ড৷ এ যে এই স্কুলেরই এক ছাত্র স্বাধীনতার দিবসের দিনে পাকিস্তানি জার্সি পরে স্কুল চত্বরে উপস্থিত৷ তার মুখে ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’ স্লোগান৷

জানা গিয়েছে, ওই ছাত্র মুর্শিবাদের রঘুনাথগঞ্জ এলাকার একটি হাই স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্র৷ ওই ছাত্রের এহেন কাণ্ডে দেখে হতবাক সকলে৷ শেষ পর্যন্ত কি না পাকিস্তানের স্লোগান ? সেই সময় তখন কিন্তু তার বন্ধুরা ভিলেন হয়ে উঠেছে। তাকে সবাই মিলে ধরে মারধর শুরু করে৷ তারপর থানায় নিয়ে গিয়ে তাকে তুলে দেওয়া হয় পুলিশের হাতে৷ রঘুনাদগঞ্জ থানার পুলিশ ছাত্রটিকে আটক করে৷

তার স্কুলের সহপাঠীদের অভিযোগ, চিরশত্রু দেশের জামা গায়ে দিয়ে স্কুলে এসেছে সে৷ এটা একদম মেনে নেওয়া যায় না৷ তাকে জামা খুলতে বললেও সে তাতে রাজি নয় বলে দাবি তার বন্ধুদের৷ আর ওই ছাত্র বলেন, ‘‘ ওই জার্সিটা দেখে ভালো লেগেছে তাই সে পড়েছি৷’’ নেহাতই ভালো লাগা নাকি বিশেষ কোনও কারণে অনুপ্রাণিত হয়েই সে এই কাজ করেন? তা ওই ছাত্রকে জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যেমে বোঝার চেষ্টা করছে পুলিশ৷ তবে এদিনের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ওই হাই স্কুল চত্বরে৷ পুলিশ অবশ্য পরে ছাত্রটিকে ছেড়ে দেয়৷ যদিও এবিষয়ে পুলিশের তরফে থেকে অবশ্য কেউ কিছু বলতে চায়নি৷

কোচবিহারেও মর্যাদার সঙ্গে পালিত হল ৭২ তম স্বাধীনতা দিবস

কোচবিহার, ১৫ আগস্টঃ গোটা দেশের সঙ্গে কোচবিহারেও মর্যাদার সঙ্গে পালিত হল ৭২ তম স্বাধীনতা দিবস। এদিন সকাল ৯ নাগাদ কোচবিহারের জেলা শাসক অফিসে ভারতের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। জেলা শাসক কৌশিক সাহা জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন।

জাতীয় সংগীত গাওয়ার পাশাপাশি দেশের জয় সূচক ধ্বনিতে মুখরিত হয় জেলা শাসকের অফিস চত্বর। স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে অফিসে বাইরে বৃক্ষরোপণ করা হয়। সাগর দিঘির পারে জেলা শাসকের দপ্তর ছাড়া সমস্ত সরকারি অফিস আদালতেও জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। সাগরদিঘির দক্ষিণ দিকের কিনারে থাকা প্যাটন ট্যাঙ্কের সামনে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করেন জেলা প্রাক্তন সৈনিক সংঘ

প্রতি বছরের মত এবারও কোচবিহারের পঞ্চরঙ্গি ইউনিট, শ্যামাপ্রসাদ কলোনি সহ আরও কিছু জায়গায় ম্যারাথন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে অন্যান্য বছরের মত এবার সাঁতার প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয় রাজমাতা দিঘিতে। এছাড়া শহরের অনেক ক্লাব, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সংস্থার পক্ষ থেকে মর্যাদার সঙ্গে দিনটি পালন করা হয়। অনেক জায়গায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সন্ধ্যার থেকে দেশাত্ম বোধক নাচ গানের মধ্যে দিয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান রঙিন হয়ে ওঠে।

স্বাধীনতা দিবসে বামফ্রন্টের মানববন্ধন কর্মসূচি কোচবিহার ও দিনহাটায়

কোচবিহার ও দিনহাটাঃ প্রতিবছরের মতো এবছরও স্বাধীনতা দিবসে দেশের সার্বভৌমত্ব, গণতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতা রক্ষায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করল বামদলগুলি। এদিন সারা রাজ্যের পাশাপাশি কোচবিহার ও দিনহাটায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়।

এদিন কোচবিহার শহরের হরিশপাল চৌপথিতে জেলা বামফ্রন্টের পক্ষ থেকে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। এদিন এই কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন জেলা বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান তারিণী রায়, সিপিএমের জেলা সম্পাদক অনন্ত রায়, সিপিএম নেতা মহানন্দ সাহা, ফরওয়ার্ড ব্লক নেতা দীপক সরকার, সিপিএমের শ্রমিক সংগঠনের জেলা সম্পাদক জগৎজ্যোতি দত্ত সহ অন্যান্য বাম নেতাকর্মীরা। এদিন দিনহাটার পাঁচ মাথা মোড়ে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। এদিন সেখানে উপস্থিত ছিলেন ফরওয়ার্ড ব্লক নেতা অক্ষয় ঠাকুর, আব্দুল রউফ, শ্যামল ধর, সিপিএম নেতা তারাপদ বর্মন, বিশ্বনাথ চৌধুরী, সিপিআই নেতা পল্লব চৌধুরী সহ বাম নেতা কর্মীরা। এবছরের স্বাধীনতা দিবসের মানব বন্ধন কর্মসূচিতে বামেদের তরফে এনআরসি ইস্যুকে তুলে ধরা হয়।

জেলা বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান তারিণী রায় বলেন, “এনআরসি ইস্যুতে রাজনীতি করছে রাজ্য সরকার। তারা অসম কিংবা অসমের মানুষের বিরুদ্ধে নন। জাতীয় নাগরিকপঞ্জির প্রশ্নে ভারত সরকারকেই দায়িত্ব নিতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন।”