ভুয়ো সংঘর্ষের মামলায় যাবজ্জীবন অসমের মেজর জেনারেল সহ ৭ সেনা কর্তার

প্রতীকী ছবি

গুয়াহাটি, ১৫ অক্টোবর: ২৪ বছরের পুরনো সেই মামলার রায় বেরোয় শনিবার। তাতে অভিযুক্ত সেনা প্রধান-সহ সাত জনকে দোষী সাব্যস্ত করে যাবজ্জীবনের সাজা শোনায় সেনা আদালত। সাজাপ্রাপ্তরা হলেন মেজর জেনেরাল একে লাল, কর্নেল থমাস ম্যাথু, কর্নেল আরএস সিবিরেন, ক্যাপ্টেন দিলীপ সিং, ক্যাপ্টেন জগদেও সিং, নায়েক শিভেন্দ্রর সিং ও নায়েক অলবিন্দর সিং।

Top News

১৯৯৪ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি অসমের তিনসুকিয়া জেলায় সন্দেহের বশে ৯ জনকে আটক করে ওই সাত সেনা। তারা দাবি করেন, আটক ব্যক্তিরা ইউএলএফএ জঙ্গি। তারা এলাকার চা-বাগানের উচ্চপদস্থ এক আধিকারিককে খুনের ঘটনায় জড়িত। দিনকয়েক পর ৫ জনকে ভুয়ো এনকাউন্টারে হত্যা করে ওই সাত সেনা। বাকি ৪ জনকে পরে ছেড়ে দেওয়া হয়। সেনাবাহিনীর এই ভূমিকা নিয়ে সরাসরি অভিযোগ তোলেন তৎকালীন মন্ত্রী জগদীশ ভুঁইয়া। অভিযোগ ওঠে মেজর জেনারেল এ কে লাল, কলোনেল টমাস ম্যাথেউ, কলোনেল আর এস সিবিরেন, ক্যাপ্টেন দিলীপ সিংহ. ক্যাপ্টেন জগদেও সিংহ, অলবিন্দর সিংহ ও শিবেন্দর সিংহের বিরুদ্ধে। মামলা গড়ায় হাইকোর্টে। তদন্তে জানা যায়, নিহতেরা আসুর সদস্য ছিলেন। আদালতের নির্দেশে পাঁচ জনের দেহ ঢোল্লা থানায় পেশও করেন সেনা কর্তারা।

দীর্ঘ ২৪ বছর পর ২০১৮ সালের ১৬ জুলাই ওই সাত সেনার বিরুদ্ধে কোর্ট মার্শাল প্রক্রিয়া শুরু করে সেনাবাহিনী। যা ২৭ জুলাই শেষ হয়। তার পরিপ্রেক্ষিতে শনিবার সাজা ঘোষণা করে সেনাবাহিনীর আদালত।