নাম নেই NRC-র খসড়া তালিকায়, ‘বিদেশি’ তকমা লাগার আশঙ্কায় আত্মঘাতী কিশোরী

অসম, ২৭ জুনঃ বুধবার সকাল ১০টা নাগাদ প্রকাশ করা হয় জাতীয় নাগরিকপঞ্জী-র থেকে বাদপড়াদের অতিরিক্ত একটি তালিকা। সেই তালিকায় নাম নেই ১ লক্ষ ২ হাজার ৪৬২ জনের। কিন্তু গতবছর নাগরিক পঞ্জীর খসড়া তালিকায় তাদের নাম ছিল। আর জাতীয় নাগরিক পঞ্জীতে নাম না-থাকায় আত্মহত্যার পথ বেছে নিল ১৪ বছরের এক কিশোরী। মৃতের নাম নুর জাহান বেগম। ঘটনাটি ঘটেছে অসমের দারাং জেলার প্রত্যন্ত গ্রাম রৌমারি চাপোরিতে।

Top News

বুধবার প্রকাশিত তালিকায় এনআরসি’র খসড়া থেকে বাদ পড়েন আরও লক্ষাধিক মানুষ। নয়া তালিকায় জাতীয় নাগরিক পঞ্জী থেকে বাদ দেওয়া হয় ১,০২,৪৬২ জনকে। গত বছর ৩০ জুলাই প্রকাশিত খসড়ায় এঁদের নাম ছিল। অথচ আচমকাই তাঁরা অযোগ্য হিসেবে বিবেচিত হওয়ায় তাঁদের নাম বাদ পড়েছে এনআরসি’র নয়া খসড়া থেকে। সেই তালিকায় নাম নেই দেখে নুর জাহান বেগমের ধারণা হয়, সেটিই এনআরসি’র চূড়ান্ত খসড়া। কাজেই নিজের গায়ে ‘বিদেশি’ তকমা লাগার আশঙ্কায় গলায় ওড়নার ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে নুর জাহান।

নুরের এক আত্মীয় জানিয়েছেন, “২০১৮ সালে অসম সরকার প্রকাশিত জাতীয় নাগরিক পঞ্জীর তালিকায় নুরের নাম ছিল না। তবে চূড়ান্ত তালিকায় তার নাম থাকবে বলে সে আশাবাদী ছিল। যখন সরকার আরও লক্ষাধির মানুষকে বাদ দিয়ে আর একটি তালিকা প্রকাশ করল, নুর ও তার পরিবার মনে করে সেটিই চূড়ান্ত তালিকা। নুরের বাবা রৌমারি এনআরসি সেবা কেন্দ্রে গিয়ে দেখেন তালিকায় তাঁর মেয়ের নাম নেই। সে কথা নুরকে ফোনে জানানোর পরই ও আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়”।