সম্পর্কে যৌনতা কতটা? কিংবা হঠাৎ দুরত্ব? জেনে নিন আপনার ঘুমনোর ধরন কি বলছে?

একটি পরিপূর্ণ ঘুম আমদের জীবনের অনেক সমস্যা দুর করে দিতে পারে। তবে তা যদি হয় আপনার প্রিয়জনের সঙ্গে, তাহলে দুজনের মধ্যে ঘটে চলা অনেক সমস্যাই নিমিষে কেটে যেতে পারে। প্রিয় পুরুষ অথবা নারীকে জড়িয়ে নিয়ে একটা সুন্দর নিদ্রা, সম্পর্ককে আরও সুন্দর করে তুলতে পারে। আপনার ঘুমনোর ধরণ বলে দিতে পারে আপনাদের সম্পর্ক ঠিক কোন জায়গার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে।

Top News

ঘুমের সময় মানুষ কোন অভিনয় করতে পারে না। তাই আপনাদের ঘুমনোর ধরন বলে দেয় যে আপনাদের জীবনে যৌনতা কেমন। একে অপরের প্রতি বিশ্বাস এবং ভরসা কতটা রয়েছে। আপনাদের সম্পর্কের ভীতটাই বা কতটা মজবুত? মিলিয়ে নিন কিভাবে আপনি ঘুমান, আর ঠিক কেমন রয়েছে আপনাদের সম্পর্ক?

১) পিছন থেকে জড়িয়ে ধরে ঘুমনঃ
এই ধরন যেমন মিষ্টি, তেমনই রোম্যান্টিক। এ থেকে বোঝা যায় একজন অন্যজনের কতটা যত্ন নেয়। বডি ল্যাঙ্গুয়েজ বিশেষজ্ঞরা মতে, এই পজিশনে তারাই শোয় যৌনতা যাদের প্যাশন। এছাড়া দু’জনের মধ্যে বিশ্বাস থাকলেও এই পজিশন নিজে থেকেই চলে আসে। শোয়ার এই ধরন যেমন মিষ্টি, তেমনই রোম্যান্টিক। এ থেকে বোঝা যায় একজন অন্যজনের কতটা যত্ন নেয়।

২) সঙ্গীর দিকে পিছন ফিরে ঘুমনোঃ
অনেকসময় দু জনের মধ্যে শারীরিক কোনও যোগাযোগ থাকে না। বিশেষজ্ঞদের মতে এটি সম্পর্কের নিরাপত্তা বোঝায়। এ থেকে বোঝা যায় দু’জন দু’জনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। সম্পর্ক নিয়ে তাদের মধ্যে কোনও নিরাপত্তাহীনতা নেই।

৩) শরীরী স্পর্শ রেখে পিছন ফিরে ঘুমনোঃ
কেউ সঙ্গীর দিকে পিছন ফিরে শুয়ে আছে, অথচ দুই শরীরের মধ্যে স্পর্শ আছে। এমন ঘটনা সচরাচর নতুন দম্পতির ক্ষেত্রে দেখা যায়। যারা বহুদিন ধরে সম্পর্কে রয়েছে বা বিয়ের অনেকদিন হয়ে গিয়েছে, তাদের ক্ষেত্রে এসব দেখা যায় না।

৪) বিছানা জুড়ে ঘুমনোঃ
কারোর আবার ঘুমোনোর জন্য প্রচুর জায়গা দরকার হয়। এরা সম্পূর্ণ বিছানাজুড়ে শুয়ে থাকে। আর সঙ্গী থাকে একপাশে। এসব তখনই হয় যখন সম্পর্ক কোনও সমস্যার মধ্যে দিয়ে যায়। একজন এক্ষেত্রে নিজের ক্ষমতা জাহির করতে চায়। চরিত্রগত দিক থেকে তারা হয় স্বার্থপর। আর এর ফল ভোগ করে অন্যজন।

৫)দুজনে জড়িয়ে ঘুমনোঃ
দম্পতি বা প্রেমিক-প্রেমিকার একে অপরকে জড়িয়ে শোওয়া এমন কিছু নতুন নয়। এই সময় একজনের পায়ের মাঝে থাকে আরেকজনের পা। বাহুবন্ধনও থাকে অন্যজনকে ঘিরে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এমন পজিশনের মানে দু’জন দু’জনের উপর যথেষ্ট নির্ভরশীল। তারা একে অপরের সান্নিধ্য পায় খুব কম। তাই যেটুকু পায়, সম্পূর্ণটা এক মুহূর্তও নষ্ট করতে নারাজ তারা। সম্পূর্ণ সময়টুকু সঙ্গীর জন্যই বাঁচিয়ে রাখতে চায় তারা।

৬) বুকে মাথা রেখে ঘুমনঃ
সঙ্গীর বুকে মাথা রেখে শোয়ার মধ্যে রোম্যান্টিকতা আছে ভরপুর। কিন্তু এই ধরন এও বলে, দু’জন দু’জনের প্রতি যত্নশীল। এটি প্রতিশ্রুতির বহিঃপ্রকাশ। সাধারণত নতুন সম্পর্কের ক্ষেত্রে এটি দেখা যায়। কিন্তু তাই বলে পুরনো সম্পর্কের ক্ষেত্রে যে এসব হয় না, তা একেবারেই নয়। একে অপরের প্রতি ভালবাসার গভীরতাকে বোঝায় ঘুমনোর এই ধরনটি।

তবে যদি আপনার সম্পর্ক খুব ওঠাপড়ার মধে দিয়ে যাচ্ছে, কথা বলেও যেই সমস্যা গুলো মিটছে না বলে আপনি ভাবছেন, তাহলে একটা ভাল স্লিপিং পজিশন ট্রাই করে দেখতে পারেন। তবে অবশ্যই সঠিক মন থেকেই করুন, কে বলতে পারে যা হয়তো আপনি মুখে বলতে পারছেন না নীবির স্পর্শ কোন শব্দ ছাড়াই আপনার সব না বলা কথা গুলো সঙ্গীর কানে পৌঁছে দিতে পারে। ঘুম থেকে উঠে দেখলেন আপনাদের সম্পর্ক আবার আগের মত হয়ে গেলো।