ইরানে আটক এ রাজ্যের ১২ জন যুবক, উদ্বিগ্ন পরিবার

ওয়েব ডেস্ক, ২৪ অক্টোবর : এরাজ্যের বারো জন যুবকের ভবিষ্যৎ এখন অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। কারণ সোনার গয়না তৈরির কারখানাগুলি বন্ধ হয়ে যাওয়াতে তাঁরা ইরানে গিয়ে আটকে পড়েছে। ওই ঘটনায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে তাঁদের পরিবার।

Top News

জানা গিয়েছে, মাস আটেক আগে কোটালপুরের শেখ গিয়াসউদ্দিন নামক এক যুবক ইরানের চাঁপাহারে নিয়ে গিয়েছিল হুগলির পাণ্ডুয়ার পাঁচজন সহ বারো জন যুবককে সোনার কাজের জন্য। মাস তিনেক আগে হঠাৎই সোনার কাজ বন্ধ হয়ে যায়। মালিকপক্ষ কোনও কিছু না জানিয়ে বন্ধ করে দেওয়ার ফলে বিপাকে পড়ে বারো জন ভারতীয়। মালিকের কাছে টাকা না পাওয়ায় আর্থিকভাবে সমস্যায় ভুগছে তারা। সূত্রের মাধ্যমে জানা যায়, বর্তমানে পাসপোর্ট আটকে রেখেছে মালিকপক্ষ। এর ফলে বিপদে পড়েছে পাণ্ডুয়ার শেখ রহিম আলি, শেখ গিয়াসউদ্দিন, সইদুল ইসলাম ও সাইফুল হাসানরা। এখন টাকার অভাব ও সরকারি সাহায্যের আশায় দিন গুনছে তাঁরা।

রহিমের বাবা আজ়হার আলি বলেন, “সরকার আমার ছেলেকে ফিরিয়ে আনুক। কী পরিস্থিতির মধ্যে আছে বুঝতে পারছি না। আমি ও আমার পরিবার প্রচণ্ড ভয়ে আছি। এই অবস্থায় কী করব নিজেরাই জানি না। ফোনে এক বার কথা হয়েছে। কিছু টাকার আশায় ছেলে ওখানে গিয়েছিল। কিন্তু, কম্পানি বন্ধের ফলে মাইনের টাকা দেওয়াও বন্ধ করে দিয়েছে। ভারতে ফেরার টাকাও দিচ্ছে না। আমার ছেলে এখন সমস্যায় পড়েছে। আমার ছেলে ছাড়াও অনেকেই আছে। তারাও এখন একই পরিস্থিতির মুখে পড়ছে”। যুবকদের তরফে ভারতীয় দূতাবাসে খবর দেওয়ার জন্য আবেদন জানানো হয়েছে।