জেনারেল ছাত্রছাত্রীদের ১০ শতাংশ সংরক্ষণের নয়া আইন প্রধানমন্ত্রীর রাজ্যে

ওয়েব ডেস্ক, ১৪ জানুয়ারিঃ লোকসভা নির্বাচনের আগে নয়া আইন প্রধানমন্ত্রীর রাজ্যে। জেনারেল এবং আর্থিক ভাবে দুর্বল ছাত্রছাত্রীদের জন্য ১০ শতাংশ সংরক্ষণ ঘোষণা করলো কেন্দ্র। এই নিয়ে বিল আনা হয়েছিল। রাষ্ট্রপতির সাক্ষরের পর এই নতুন আইন সোমবার ১৪ জানুয়ারি থেকে প্রধানমন্ত্রীর রাজ্য গুজরাটে তা চালু করে দিল বিজয় রুপানি সরকার। সংবিধানের ১৫ ও ১৬ নম্বর ধারাকে সংশোধন করা হয়। সাধারণদের জন্য শিক্ষা ও চাকরিতে ১০ শতাংশ সংরক্ষণ দিতে সংবিধানের ১৫ ও ১৬ নম্বর ধারায় এই সংশোধন করা হয় বলে জানা যায়।

Top News

তবে এক্ষেত্রে উল্লেখ্য যে সংরক্ষণ দেওয়া হবে সেইসব মানুষদের যাদের আয় বছরে ৮ লাখ টাকা পর্যন্ত বা জমির পরিমাণ ৫ একরের কম। রবিবার গুজরাট সরকার এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, ১৪ জানুয়ারি থেকে রাজ্যে সাধারণদের মধ্যে আর্থিকভাবে দুর্বলরা শিক্ষা ও চাকরিতে ১০ শতাংশ সংরক্ষণের সুবিধা পাবেন। গুজরাট সরকারের ওই বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়েছে ১৪ জানুয়ারির আগে যেসব চাকরির পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে তাদের ক্ষেত্রেও ওই সংরক্ষণ নীতি কার্যকর হবে। তবে যেসব নিয়োগ বা পরীক্ষা ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে সেইসব ক্ষেত্রে ১০ শতাংশ সংরক্ষণের নিয়ম লাগু হবে না।

এদিকে, বিলটির সাংবিধানিক বৈধতাকে চ্যালেঞ্জ করে মামলা দায়ের হয়েছে সুপ্রিম কোর্টে। শীর্ষ আদালতে মামলাকারীর বক্তব্য, সুপ্রিম কোর্টের বেঁধে দেওয়া সংরক্ষণের ৫০ শতাংশ সীমা ছাড়িয়ে গিয়েছে ওই সংরক্ষণের ফলে। ইউথ ফর ইক্যুয়ালিটি নামের একটি সংস্থার তরফ থেকে আর্জি করা হয়েছে যে বিলটি পাশের ফলে সংরক্ষণ ৬০ শতাংশে পৌঁছে যাবে। এতে সুপ্রিম কোর্টের রায় লঙ্ঘন করা হয়েছে। এর পাশাপাশি আর্থিকভাবে সংরক্ষণ সংবিধানের অবমাননা বলেও দাবি করা হয়েছে বলে ওই সংস্থার তরফ থেকে জানা যায়।