সিবিআইয়ের অন্তর্বর্তিকালীন ডিরেক্টর পদে এম নাগেশ্বর রাও

ওয়েব ডেস্ক, ১১ জানুয়ারিঃ সিবিআইয়ের অন্তর্বর্তিকালীন ডিরেক্টর পদে আনা হল এম নাগেশ্বর রাওকে। গত মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ তাঁর রায়ে অলোক ভার্মাকে ছুটিতে পাঠানোর সিদ্ধান্ত খারিজ করে দেন। অলোক ভার্মাকে ডিরেক্টর পদে পুনর্বহাল করার নির্দেশ দিয়ে তিনি বলেন, “অলোক ভার্মা এখন থেকে তাঁর অফিসে যেতে পারেন কিন্তু বড় কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন না।” রায়ে প্রধান বিচারপতি অলোক ভার্মার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ভার হাই পাওয়ার কমিটির হাতেই ন্যস্ত করেন। ওই কমিটিতে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী, প্রধান বিচারপতি, সহ বিরোধী দলনেতাও। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে পুনরায় ডিরেক্টর পদে বহাল হয়ে অলোক ভার্মা গতকাল ৫ জন আধিকারিককে বদলির নির্দেশ দেন। পাশাপাশি ১০ আধিকারিকের বদলির নির্দেশ বাতিল করেন তিনি। এরপরেই বৃহস্পতিবার সন্ধেয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাড়িতে বৈঠকে বসে হাই পাওয়ার কমিটি। প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ-র প্রতিনিধি হিসেবে বৈঠকে ছিলেন বিচারপতি এ কে সিকরি। সেই কমিটিই অলোক ভার্মার অপসারণের সিদ্ধান্ত নেয়।

Top News

এদিকে, শুক্রবার প্রাক্তন সিবিআই প্রধান অলোক ভার্মাকে পাঠানো হয়েছিল দমকল ও সিভিল ডিফেন্সের ডিজি করে। সেই পদে যোগ দিতে অস্বীকার করেন অলোক ভার্মা। সংশ্লিষ্ট দফতরের সচিবকে এক চিঠিতে ভার্মা লিখেছেন, “আমাকে নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে সিলেকশন কমিটি আমাকে আত্মপক্ষ সমর্থন করার সুযোগ দেয়নি”।

ওড়িশা ব্যাচের আইপিএস অফিসার নাগেশ্বর রাও আপাতত সিবিআই প্রধানের দায়িত্বে কাজ করবেন। স্পেশাল সিবিআই ডিরেক্টর রাকেশ আস্থানার বিরুদ্ধে ওঠা ঘুষের অভিযোগেরও তদন্তের দায়িত্ব পেয়েছেন নাগেশ্বর রাও। আর পদ আসতেই অলোক ভার্মা যেসব আধিকারিকের বদলির নির্দেশ দিয়েছিলেন তা বাতিল করে দেন তিনি।

উল্লেখ্য, সিবিআইয়ের ডিরেক্টরদের মধ্যে গন্ডগোলের মাঝে ২০১৮ সালের ২৩ অক্টোবর সিবিআইয়ের ডিরেক্টের দায়িত্ব সামাল দেওয়ার জন্য আনা হয় নাগেশ্বর রাওকে। কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থার স্পেশাল ডিরেক্টর রাকেশ আস্থানা ও ডিরেক্টরের মধ্যে গোলমালের কারণেই আনা হয় রাওকে। ওই পদে আসার পর দিনই সংস্থার একঝাঁক অফিসারকে বদলি করে দেন রাও।