ভারতের হামলার ভয়ে হাসপাতাল গুলিকে তৈরি থাকার নির্দেশ দিল পাকিস্তান  

ওয়েব ডেস্ক, ২২ ফেব্রুয়ারিঃ ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলায় শহীদ হয়েছেন কমপক্ষে ৪০জন সিআরপিএফ জওয়ান। ওই জঙ্গি হামলার জেরে ক্ষোভে ফুঁসছে গোটা দেশ। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ শুরু করেছে জনতা। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও পুলওয়ামা হামলার পর ভারত প্রত্যাঘাত করবে বলে জানিয়েছেন। ফলে আশঙ্কায় পরে গেছে পাকিস্তান। সেই আশঙ্কার জেরে নিজেদের ঘর গোছাতে শুরু করে দিয়েছে  পাকিস্তান। এছাড়াও এক সংবাদ মাধ্যমে জইশ-ই-মহম্মদের প্রধান মাসুদ আজহার ভারতের চাপের মুখে পাকিস্তান সরকারকে নতি স্বীকার করতে না বলেছে।

Top News

ওই সংবাদ মাধ্যমের খবর অনুযায়ী, তাদের হাতে দুটি সরকারি নথি এসেছে। একটি বালুচিস্তানের পাকিস্তান সেনার তরফে এবং অপরটি পাকিস্তান-অধিকৃত কাশ্মীরের স্থানীয় প্রশাসনের কাছে পাঠানো হয়েছে। যুদ্ধের পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে বুধবার পাকিস্তান সেনার হেডকোয়ার্টার্স কোয়েটা লজিস্টিক এরিয়ার ফোর্স কমান্ডার আশিয়া নাজ গিলানি হাসপাতালকে একটি চিঠি লিখেছে। ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, “ইস্টার্ন ফ্রন্টে যুদ্ধের পরিস্থিতি তৈরি হলে সিন্ধ ও পঞ্জাবের সামরিক ও অসামরিক হাসপাতাল থেকে কোয়েটা লজিস্টিক এরিয়ায় অনেক জখম জওয়ানদের নিয়ে আসা হবে। প্রাথমিক চিকিৎসার পর জওয়ানদের বালুচিস্তানের সিভিল হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হবে। সামরিক ও অসামরিক হাসপাতালে বেড খালি না হওয়া পর্যন্ত সেখানেই তাদের রাখা হবে।”

এছাড়া চিঠিতে বলা হয়েছে, “ বালুচিস্তানের সব সামরিক ও অসামরিক হাসপাতালগুলির সম্মিলিত চিকিৎসা পরিষেবাকে জুড়ে লজিস্টিক এরিয়াতে চিকিৎসা বন্দোবস্ত করা হয়েছে। জরুরি পরিস্থিতিতে সামরিক হাসপাতালে বেডের সংখ্যা কম হলে অসামরিক হাসপাতালগুলির ২৫ শতাংশ বেড তৈরি রাখা হয়েছে। পাকিস্তানের অন্য এলাকা থেকে আমরা ভালো প্রতিক্রিয়া পেয়েছি। বালুচিস্তান থেকেও একইরকম প্রতিক্রিয়ার আশা করছি।” বৃহস্পতিবার লাইন অফ কন্ট্রোল বরাবর নিলুম, ঝেলুম, রাওয়ালকোট, কোটলি, ভিমবার ও হাওয়েলির স্থানীয় প্রশাসনকে পাকিস্তান সরকারের তরফে চিঠি পাঠিয়ে বলা হয় ভারতীয় সেনা সম্ভাব্য আক্রমণের জন্য সতর্ক থাকতে।

পাশাপাশি, স্থানীয়দের সতর্ক করা হয়েছে। নির্দেশ দেওয়া হয়, “নিরাপদ রাস্তা দিয়ে যাতাযাত করুন। একসঙ্গে অনেকে একত্রিত হবেন না। যাঁদের বাঙ্কার নেই, তাঁরা যেন দ্রুত বাঙ্কার তৈরি করেন। রাতে বাড়িতে অযথা আলো জ্বালাবেন না।”