সিন্ধ প্রদেশে চার শতাধিক HIV আক্রান্ত, মহামারীর আশঙ্কা পাকিস্তানে

ওয়েব ডেস্ক, ২১ মেঃ পাকিস্তানের সিন্ধ প্রদেশে কমপক্ষে ৪০০ জনের বেশি এইচআইভিতে আক্রান্ত। এদের মধ্যে অধিকাংশই শিশু। ক্রমশ ভয়াবহ আকার নিচ্ছে এইচআইভির প্রকোপ। পাকিস্তানের সিন্ধ প্রদেশে দলে দলে অবিভাবক আসছেন স্বাস্থ্যকেন্দ্রে। সরকারের আন্দাজ এইচআইভি আক্রান্ত হয়েছে কমপক্ষে সিন্ধের ৪০০জনের বেশি। ফলে গোটা গোটা দেশই এখন মহামারীর আতঙ্কে কাঁপছে। সরকারি পরিসংখ্যানের বাইরে রয়ে গিয়েছে বহু আক্রান্ত। চিকিত্সকরা এখন অস্থায়ী ক্লিনিক বানিয়ে সেখানে রোগীদের রক্ত পরীক্ষা করছেন।

Top News

কিন্তু কি ভাবে এরকম ব্যাপক সংক্রমণ ঘটে গেল গোটা একটা প্রদেশে। পাকিস্তানের সিন্ধের সরকারি আধিরারিকদের মতে, এই সংকংর্মণের পেছনে রয়েছে দেশের কোয়াক ডাক্তাররা। এরাই অবশ্য পাকিস্তানের চিকত্সাব্যবস্থা মরুদণ্ড। পাকিস্তানে রয়েছেন প্রায় ৬ লক্ষ কোয়াক ডাক্তার। এর মধ্যে প্রায় ৩ লক্ষ সিন্ধ প্রদেশের। মনে করা হচ্ছে সংক্রমিত সিরিঞ্জ থেকেই এরকম এক ভয়ঙ্কর ঘটনা ঘটে গিয়েছে।

আর এর ফলে গোটা গোটা দেশই এখন মহামারীর আতঙ্কে কাঁপছে। সরকারি পরিসংখ্যানের বাইরে রয়ে গিয়েছে বহু আক্রান্ত। চিকিত্সকরা এখন অস্থায়ী ক্লিনিক বানিয়ে সেখানে রোগীদের রক্ত পরীক্ষা করছেন। লারকানার এক চিকিত্সক সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন, দলে দলে লোক আসছেন রক্ত পরীক্ষা করতে। এই ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির জন্য দায়ি সেদেশের বেপরোয়া চিকিত্সকরা। যদিও বহু দিন ধরে পাকিস্তানকে এইচআইভি প্রবণ দেশ হিসেবে মনে করা হয়। তলে তলে এটি ছড়িয়ে পড়ছিল যৌন কর্মী ও ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে। ২০১৭ সালে পাকিস্তানে ২০,০০০ এইডস রোগীর সন্ধান পাওয়া যায়। বর্তমানে এটি  এশিয়ার দ্বিতীয় দেশ যেখান লাফিয়ে বাড়ছে এইডস আক্রান্তের সংখ্যা।