আর্জেন্টিনার মেসির কাছে হেরে গেলেন ব্রাজিলের নেইমার!

চন্দন দাস, কোচবিহারঃ আর্জেন্টিনার মেসির কাছে হেরে গেলেন ব্রাজিলের নেইমার! বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাশিয়ার লাজনিকি স্টেডিয়ামে শুরু হচ্ছে বিশ্বকাপ ফুটবলের মহারন। প্রথম দিনের খেলায় মুখোমুখি হচ্ছে আয়োজক দেশ রাশিয়া বনাম সৌদি আরব। আর সেই মহারনে মেতে উঠেছে ফুটবল প্রিয় এই বঙ্গের বাসিন্দারা। কেউ নিজের পছন্দের দলের জার্সি কিনছেন, কেউ আবার জাতীয় পতাকা। আর যার ট্যাঁকের জোড় আছে সে দুটো একসাথে কিনে নিতে ছাড়ছেন না।

Top News

কোচবিহার ভবানীগঞ্জ বাজারে জার্সি ও পতাকা বিক্রির দোকানে এখন লম্বা লাইন। অভিজিৎ বর্মণ নামে এক আর্জেন্টিনা ভক্ত মেসির জার্সি পড়েই বলেন, “ এই মুহূর্তে মেসি সব থেকে বড় ফুটবলার। আমি প্রথম থেকেই মেসি ও আর্জেন্টিনার ভক্ত।” ব্যবসায়ী সমর ঘোষ বলেন, “গতকাল থেকেই ভির হচ্ছে। সব থেকে বেশি বিক্রি করেছি আর্জেন্টিনার মেসির নাম লেখা জার্সি। ব্রাজিলের নেইমারের নাম লেখা জার্সি বিক্রি হয়েছে। কিন্তু অনেক কম। খেলায় কি হবে, জানি না। তবে এখানে কিন্তু নেইমারকে হারিয়ে দিয়েছে মেসি।” ব্যবসায়ী সমর বাবুর কথা শেষ না হতেই পাশ থেকে এক ব্রাজিল ভক্ত টুপাই দাস বলে ওঠেন, “ আরে আপনি তো আর্জেন্টিনা ভক্ত। তাই সঠিক টা বলছেন না। থাকলে আমায় নেইমার নাম লেখা জার্সি আর ব্রাজিলের পতাকা দিন।” কিন্তু ছাড়ার পাত্র নয় সমরবাবু, জার্সি পতাকা দিতে দিতেই তথ্য দিয়ে জানালেন, গতকাল থেকে ৫০০ উপড়ে মেসির জার্সি বিক্রি করেছি। আর নেইমার খুব বেশী হলে ৩০০। তাহলেই বুঝুন? আর এমনি পেছেন থেকে আর্জেন্টিনা ভক্তরা চিৎকার করে উঠল। তখন যেন ভবানীগঞ্জ বাজারের সমর বাবুর দোকানের সামনে ব্রাজিল বনাম আর্জেন্টিনার কোন একটা মারমার কাটকাট ম্যাচ চলছে।

ইতিমধ্যেই পাড়ায় পাড়ায়, ক্লাবে ক্লাবে টিভি কিম্বা প্রোজেক্টর দিয়ে ফুটবলের বিশ্বকাপ খেলা দেখার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন ভক্তরা। তাদের অনেকেই জানিয়েছেন, এবার বিশ্বকাপ ফুটবলের বেশীর ভাগ খেলা ভারতীয় সময়ে সন্ধ্যার পর অথবা রাতের দিকে। কাজেই সারাদিন কাজকর্ম করে এসে তারা যে ফুটবল নিয়ে মাতবেন, তার ইঙ্গিত এদিন দিয়ে দিয়েছেন। কোচবিহার শহরের নিউ টাউন এলাকার বাসিন্দা ফুটবল প্রেমিক পাপন সেন বলেন, “ আমরা প্রত্যেক বছর ক্লাবে পাড়ার সবাই মিলে বিশ্বকাপ ফুটবলের খেলা গুলো দেখি। তবে ব্রাজিল কিম্বা আর্জেন্টিনার মত দলের খেলা থাকলে সেদিন ব্যাপক ভীর হয়। যে যার পছন্দের দলকে নিয়ে হইহুল্লোর করে। কিন্তু কোন আমাদের মধ্যে বিরোধ হয় না।”