কোচবিহার বিপর্যয় মোকাবিলায় সতর্ক প্রশাসন, জরুরী ভিত্তিতে হল বৈঠক 

কোচবিহার, ১১ জুলাইঃ প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের আশঙ্কায় সতর্ক প্রশাসন, গত দুদিনের অবিরাম বর্ষণে বিপর্যস্ত কোচবিহার জেলা। আগামীতে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা সতর্কবার্তা ইতিমধ্যে কোচবিহার জেলা প্রসাশনের কাছে এসে পৌঁছেছে। আর তাতেই রাতের ঘুম ছুটেছে প্রশাসনিক কর্তাদের। ১০ থেকে ১৫ জুলাই উত্তরবঙ্গের বেশ কয়েকটি জেলায় এই বিপর্যয় হওয়ার সম্ভাবনা কথা জানা গেছে প্রশাসনিক সূত্রে। স্থানীয় বৃষ্টির সাথে পাহাড়ে লাগাতার বৃষ্টিতে এমনিতেই জেলার তোর্ষা, তিস্তা, রায়ডাক সংকোশ, মানসাই, কালজানিতে  জলস্তর বাড়তে শুরু করেছে।

Top News

গত ২৪ ঘণ্টায় কোচবিহারে সদরে বৃষ্টি হয়েছে ২৮.৮৫  মিলিমিটার,  তুফানগঞ্জে ৪৭.৪০ মিলিমিটার, মাথাভাঙ্গা ৪৮.৪০ মিলিমিটার,  দিনহাটায় ৪০.২০ মিলিমিটার,  বৃষ্টিপাতের পরিমাণ সামান্য হলেও গত দু’দিনে বিরামহীন বৃষ্টি নাগরিক জীবনকে বিপর্যস্ত করে তুলেছে।  কোচবিহার জেলার নদী গুলিতে এখনও কোনও সতর্ক সংকেত না পারলেও  যে কোন মুহূর্তে জলস্তর বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। রাজ্যের সতর্কবার্তা পাবার পরই তড়িঘড়ি বৃহস্পতিবার বৈঠকে বসে জেলা প্রশাসনের শীর্ষ কর্তারা। সেখানে এসডিও, বিডিও বাদেও বিভিন্ন দপ্তরের আধিকারিকরা উপস্থিত ছিলেন। বিপর্যয় মোকাবিলায় কিভাবে মাঠে নামতে হবে তার কৌশল ঠিক হয় এ দিনের বৈঠকে।

জেলাশাসক কৌশিক সাহা জানান আমরা জরুরী ভিত্তিতে আজ বৈঠক করেছি। যে কোন পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রশাসন তৈরী রয়েছে। সংশ্লিষ্ট আধিকারিক বাদেও সীমান্ত রক্ষী বাহিনীকেও সর্তক থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের আশঙ্কায় সতর্ক প্রশাসন, গত দুদিনের অবিরাম বর্ষণে বিপর্যস্ত কোচবিহার জেলা। আগামীতে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা সতর্কবার্তা ইতিমধ্যে কোচবিহার জেলা প্রসাশনের কাছে এসে পৌঁছেছে।  আর তাতেই রাতের ঘুম ছুটেছে প্রশাসনিক কর্তাদের। ১০ থেকে ১৫ জুলাই উত্তরবঙ্গের বেশ কয়েকটি জেলায় এই বিপর্যয় হওয়ার সম্ভাবনা কথা জানা গেছে প্রশাসনিক সূত্রে। স্থানীয় বৃষ্টির সাথে পাহাড়ে লাগাতার বৃষ্টিতে এমনিতেই জেলার তোর্ষা, তিস্তা, রায়ডাক সংকোশ, মানসাই, কালজানিতে  জলস্তর বাড়তে শুরু করেছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় কোচবিহারে সদরে বৃষ্টি হয়েছে ২৮.৮৫  মিলিমিটার,  তুফানগঞ্জে ৪৭.৪০ মিলিমিটার, মাথাভাঙ্গা ৪৮.৪০ মিলিমিটার,  দিনহাটায় ৪০ মিলিমিটার,  বৃষ্টিপাতের পরিমাণ সামান্য হলেও গত দু’দিনে বিরামহীন বৃষ্টি নাগরিক জীবনকে বিপর্যস্ত করে তুলেছে।  কোচবিহার জেলার নদী গুলিতে এখনও কোনও সর্তক সংকেত না পারলেও  যে কোন মুহূর্তে জলস্তর বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। রাজ্যের সতর্কবার্তা পাবার পরই তড়িঘড়ি বৃহস্পতিবার বৈঠকে বসে জেলা প্রশাসনের শীর্ষ কর্তারা। সেখানে এসডিও,বিডিও বাদেও বিভিন্ন দপ্তরের আধিকারিক এর উপস্থিত ছিলেন। বিপর্যয় মোকাবিলা কিভাবে মাঠে নামতে হবে তার কৌশল ঠিক হয় এ দিনের বৈঠকে।

জেলাশাসক কৌশিক সাহা জানান আমরা জরুরী ভিত্তিতে আজ বৈঠক করেছি। যে কোন পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রশাসন তৈরী রয়েছে। সংশ্লিষ্ট আধিকারিক বাদেও সীমান্ত রক্ষী বাহিনীকেও সর্তক থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যে কোন রকম পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রশাসন তৈরি রয়েছে বলে জানান তিনি।