বাচ্চাদের দিয়ে জলের মিটারের পিতল চুরি করানোর অভিযোগ, জিজ্ঞাসাবাদ এক ব্যবসায়ীকে 

কোচবিহার, ৯ মেঃ কোচবিহার পুরসভার নতুন জল প্রকল্পে বসানো মিটারের সঙ্গে থাকা পিতলের ভালভ চুরির ঘটনায় শহরের কিছু অসৎ ব্যবসায়ীর জড়িত থাকার অভিযোগ উঠল। বুধবার সন্ধ্যায় কোচবিহার শহরের ২ নম্বর ওয়ার্ডে জলের মিটারের সঙ্গে থাকা পিতলের ভালভ  চুরি করার সময় তিন জন কিশোর কিশোরীকে হাতে নাতে ধরে ফেলে এলাকাবাসী। এরপর পুলিশে খবর দেওয়া হয়। পুলিশ এসে ওই কিশোর কিশোরীদের জিজ্ঞাসাবাদ করে স্থানীয় লক্ষ্মণ নামে এক ব্যবসায়ীর কথা জানতে পারেন। এরপর পুলিশ ওই ব্যবসায়ীকে জিজ্ঞাসাবাদ করে এবং তার দোকান থেকে কয়েকটি পিতলের ভালভ উদ্ধার করে। ৫০-৬০ টাকার বিনিময়ে ধৃত বাচ্চাদের কাছ থেকে ওই ব্যবসায়ী পিতলের ভালভ কেনার কথা স্বীকার করে নিয়েছে বলে এলাকাবাসীর দাবি।

Top News

এদিনের ঘটনার পর ওই এলাকার বাসিন্দাদের অনেকেরই অভিযোগ, বেশ কিছুদিন ধরে ওই ওয়ার্ড সহ আশেপাশের কয়েকটি ওয়ার্ডে জলের মিটারের সঙ্গে থাকা পিতলের ভালভ চুরির ঘটনা ঘটছে। বাচ্চাদের দিয়ে কয়েকজন অসাধু ব্যবসায়ী এমন কাজ করাচ্ছেন বলে অভিযোগ। বাচ্চাদের থেকে সামান্য টাকা দিয়ে তারা এগুলি কিনে নিচ্ছে বলে অনেকের দাবি। এলাকাবাসীর অভিযোগ, চার-পাঁচশো টাকা দামের ওই পিতলের ভালভ ৫০-৬০ টাকার বিনিময়ে বাচ্চাদের থেকে কিনে নিচ্ছেন ওই ব্যবসায়ীরা। যারা বাচ্চাদের কাজে লাগিয়ে বেশি টাকা মুনাফা লাভের আশায় এই কাজ করছেন, তাদের গ্রেপ্তার করে কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

এই বিষয়ে কোচবিহার পুরসভার চেয়ারম্যান ভূষণ সিং বলেন, “জলের নতুন লাইন দেওয়ার সময় শহরের বাসিন্দারা যারা না বুঝে বাড়ির বাইরে বা সামনে মিটার বসিয়েছেন, তারা মেশিনটি ভিতরে নেওয়ার ব্যবস্থা করুক। মেশিন চুরি হয়ে গেলে, সরকারের পক্ষ থেকে বিনামূল্যে তা পাওয়া যাবে না। আর যারা বাচ্চাদের দিয়ে এই সব চুরির কাজ করাচ্ছেন, তাদের ধরার জন্য পুরসভা পুলিশের সঙ্গে আলচনায় বসবে। তাদের আটক করে যাতে কঠোর শাস্তি দেওয়া হয় তার ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানানো হবে।”