কোচবিহারে মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী খুনের ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রেপ্তার অভিযুক্ত

কোচবিহার, ৬ ফেব্রুয়ারি: মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী শান্তনু ভট্টাচার্য খুনের ২৪ ঘণ্টার কাটতে না কাটতেই এক যুবককে গ্রেফতার করল পুলিশ। জানা গিয়েছে, মৃত ছাত্র শান্তনু ভট্টাচার্যের মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে কোচবিহার ১ নং ব্লকের ঘুঘুমারির বাসিন্দা শুভঙ্কর ঘোষ(২৪) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে কোচবিহার কোতোয়ালি থানার পুলিশ।

Top News

প্রসঙ্গত, বুধবার খুন হয়ে যাওয়া মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী শান্তনু ভট্টাচার্যের মোবাইল ফোন উদ্ধার হয়েছে। মৃত ওই ছাত্রের এক বন্ধুর কাছ থেকে মোবাইল উদ্ধার হয় বলে প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে। পুলিশ ওই বন্ধুকে জিজ্ঞসাবাদ করার জন্য থানায় নিয়ে যায় বলেও জানা গিয়েছে। কিন্তু ওই বন্ধুর কাছে কিভাবে মোবাইল এলো, তা নিয়ে এখনও কিছুই জানা যায় নি। তবে মোবাইল উদ্ধারের পর খুনের ঘটনা কিনারা এখন শুধু সময়ের ব্যাপার বলে মনে করা হচ্ছে। যদিও এবিষয়ে পুলিশ এখনই মুখ খুলতে চাইছে না।

জানা গেছে, একদিন নিখোঁজ থাকার পর গতকাল হরিনচওড়া এলাকায় তোর্সা নদীর জল থেকে কোচবিহার বিবেকানন্দ বিদ্যাপীঠের দশম শ্রেনীর ছাত্র শান্তনু ভট্টাচার্যের শ্বাসনালী কাটা দেহ উদ্ধার হয়। সেখানে বালির চর থেকে শান্তনুর চশমা মিললেও মোবাইল ফোন পাওয়া যায় নি। ওই মোবাইলে কেউ একজন ফোন করার পরেই শান্তনু বাড়ি থেকে শেষ বারের মত বেড়িয়েছিল বলে জানা গিয়েছে। কাজেই মোবাইল উদ্ধারের পর খুব শীঘ্র ওই ঘটনায় জড়িতদের কাছে পুলিশ পৌছাতে পারবে বলে মনে করা হচ্ছে। এদিকে এদিন দুপুরে ময়না তদন্তের পর শান্তনুর দেহ নিয়ে যাওয়ার সময় শহর লাগোয়া চাকির মোড় এলাকায় রাস্তা অবরোধ করে দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানানো হয়। ২০ মিনিট ধরে ওই অবরোধ চলার পর মাথাভাঙা ও দিনহাটার সাথে কোচবিহারের যোগাযোগ রক্ষাকারী ওই রাস্তায় ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয়। যদিও পুলিশ এসে কথা বলে অবরোধকারীদের সরিয়ে দেয় বলে জানা গিয়েছে। তারপর কোচবিহার কোতোয়ালি থানার পুলিশের তৎপরতায় মৃত ছাত্রের ওই মোবাইলের সুত্র ধরে ওই যুবককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।