উল্টো রথে বাড়ি ফিরলেন ‘মদন মোহন’

কোচবিহার, ১১ জুলাইঃ রথ থেকে উল্টো রথ এক ঐতিহ্য ও পরম্পরার ইতিহাস কোচবিহারে। এখানে জগন্নাথ নয় কোচবিহারের মহারাজাদের কুল দেবতা মদন মোহনের রথযাত্রা ঘিরে উন্মাদনা। মাসি ডাঙরাই আমন্ত্রণ গ্রহণ করে ‘ভাগ্নে মদন’ তার বাড়ি থেকে শহরের গুঞ্জবাড়িতে আসেন। জগন্নাথ দেবের মাসির বাড়ি গুঞ্জকা বাড়ি নামে পরিচিত। মনে করা হয় এই গুঞ্জকা বাড়ির নামের অপভ্রংশ হয়েই পরবর্তীতে মাসির বাড়ি এলাকার নাম হয় গুঞ্জবাড়ি। টানা ৭ দিন সেখানে অবস্থান করে ফের বৃহস্পতিবার ফিরে গেলেন তিনি। আজ উল্টোরথ, এদিন বিকেলে রথে চেপে মদনমোহন বাড়িতে পৌঁছে যান তিনি। মাসির বাড়িতে অবস্থান করে বাড়িতে ফিরে আজ বিশ্রাম নেন বারান্দায়।

Top News

পরবর্তীতে নির্দিষ্ট সিংহাসনে বসবেন তিনি। মহারাজা নৃপেন্দ্র নারায়ন এর সময়কালে কোচবিহার মদনমোহন বাড়ি থেকে মাসির বাড়ি ডাঙরাই মন্দিরে যাত্রা করেন মদনমোহন। ১৮৯০ সাল থেকে এই নিয়ম পরিচালিত থাকলেও ১৬৯৪ খ্রিস্টাব্দ থেকে কোচবিহারের রথের প্রচলন ছিল। মহারাজা রূপ নারায়ণের সময়কালে আঠারকোটা থেকে কোচবিহারের গুড়িয়াহাটি তালুকে রাজধানী স্থানান্তর হয়।গুড়িয়াহাটি তালুকে এই রাজধানী স্থানান্তর আনুষ্ঠানিকভাবে হয় রথযাত্রার দিন। এই ভূ-ভাগের তখন নাম হয় ‘বেহার নগরী’ বলে জানান বিশিষ্ট প্রাবন্ধিক দেবব্রত চাকী।

আজও ঐতিহ্য ও রাজ নিয়মেই কোচবিহারে রথযাত্রা পালিত হয়। এই দিন মাসির বাড়ি ডাঙরাই মন্দির থেকে নিজের বাড়ি মদন বাড়িতে রথে চেপে আসেন মদনমোহন। কোচবিহার দেবত্র ট্রাস্ট বোর্ডের রাজ পুরোহিত হীরেন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য জানান রাজ নিয়মেই পুজো পার্বণ করে ধর্মীয় আচার- নীতি মেনে উল্টোরথের কর্মসূচি পালিত হয়েছে।