চলতি মাসেই লোকসভার প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করতে পারে তৃণমূল, কোচবিহারে প্রার্থী হতে পারে পরেশ  

কোচবিহার, ১৫ ফেব্রুয়ারিঃ চলতি মাসে লোকসভা ভোটে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী তালিকা চুড়ান্ত করে তা ঘোষণা করতে চান তৃণমূলনেত্রী তথা মমতা বন্ধ্যোপাধ্যায়। প্রত্যেক বারের মত এবারও প্রার্থী ঘোষণার ক্ষেত্রে বিরোধীদের থেকে একধ্যাপ এগিয়ে থাকতে চান খোদ মুখ্যমন্ত্রী। ৪২টি আসনে একা লড়ার ডাক দেন তিনি। ইতিমধ্যে উত্তরবঙ্গের মালদায় শুরু হয়েছে প্রচার। সেখানে প্রার্থী হিসেবে নেত্রী ঠিক করে রেখেছে সদ্য কংগ্রেস থেকে আসা মৌসম নুরকে। তাছাড়া ৪১ টি আসনের মধ্যে ২-১টি আসন পরিবর্তন হতে পারে বলে জানা গেছে।

Top News

একটি সংবাদ মাধ্যমে প্রাকাশিত হয়েছে যে দলনেত্রী তথা উত্তরবঙ্গে ২-১টি আসনে প্রার্থী বদলের কথা ভেবেও রেখেছেন। জানা গেছে, কোচবিহারেও প্রার্থী বদল হতে পারে। কারন এই জেলার পঞ্চায়েত নির্বাচন থেকে তৃণমূল কংগ্রেস বনাম তৃণমূল যুব কংগ্রেসের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফলে বেশ কয়েকজন কর্মী খুন ও গুলিবিদ্ধ হয়েছে। তা নিয়ে উদ্বিগ্ন খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্ধ্যোপাধ্যায়। সেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব মেটাতে সাংসদ সুব্রত বক্সি ও সাংসদ অভিষেক বন্ধ্যোপাধ্যায়কে কোচবিহার জেলার যুগ্ম আহ্বায়ক করা হয়েছে। তাতেও কিন্তু গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব ও সংঘর্ষ থামেনি। ফলে জেলা তৃণমূল কংগ্রেস ও যুব তৃণমূলের মধ্যে এই দ্বন্দ্ব খোদ মুখ্যমন্ত্রীকে ভাবাচ্ছে। বর্তমানে সাংসদ পার্থ প্রতিম রায়ের সঙ্গে জেলার সভাপতি রবীন্দ্রনাথ ঘোষের মধ্যে কোন মিল নেই। এই খবরও রয়েছে দলনেত্রী মমতা বন্ধ্যোপাধ্যায়ের কাছে। সেই কারনে এবার দলের কোন গোষ্ঠীর কাউকে প্রার্থী করা হবে না। বর্তমানের সাংসদ পার্থ প্রতিম রায়ের পরিবর্তে সম্প্রতি সারা ভারত ফরওয়ার্ড ব্লক ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে আসা রাজ্যের প্রাক্তনমন্ত্রী খাদ্যমন্ত্রী পরেশ চন্দ্র অধিকারীকে প্রার্থী করার ভাবনাও রয়েছে নেত্রীর মাথায়। দার্জিলিং আসনে এবার বদল হচ্ছে। সেখানে অনেক সতর্কভাবে প্রচার শুরু করতে চান তৃণমূল নেত্রী। পাহাড়ে শান্তা ছেত্রীকে আগেই সাংসদ করে রেখেছেন। নেত্রী চাইছেন এবার পাহাড়ে নতুন কাউকে প্রার্থী করতে।

অপরদিকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্ধ্যোপাধ্যায় কিন্তু ঘোষণা করেছেন ৪২টি আসনে মধ্যে ৪২টি দখল করতে হবে। তিনি আরও বলেন গত পাঁচ বছরে যে সাংসদরা যারা ভাল কাজকর্মের রেকর্ড আছে এবং দলের চাহিদা মতো তাদের কেন্দ্রে সাংসদ কোটার টাকা পুরোপুরি খরচ করতে সমর্থ হয়েছেন। সেই সব কেন্দ্রের সাংসদের টিকিট পেতে অসুবিধা হবে না। এইসব কাজে যাদের পারফর্মেন্স ভাল না, দলে এমন সাংসদদের মোটেও পছন্দ নয় মুখ্যমন্ত্রীর। ফলে প্রার্থীতালিকা থেকে ছটকে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে কোচবিহারের সাংসদ পার্থ প্রতিম রায়।