সিতাইের গুলি কাণ্ডে নতুন মোড়, পারিবারিক বিবাদের জেরে গুলিবিদ্ধ মহিলা, দাবী

সিতাই, ২৬ জুনঃ সিতাই গুলি কান্ডের নতুন মোড়। পারিবারিক বিবাদের জেরে গুলিবিদ্ধ ওই মহিলা। ওই ঘটনায় একজনকে আটক করে পুলিশ। জানা গেছে, ইন্দ্রজিতের কাকাতো বোন রিংকি বর্মণের অমতে বিয়ে ঠিক হয় তাপস বর্মণ নামে এক যুবকের সাথে। ওই যুবকের বাড়ি আদাবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের ডাউয়াবাড়ি এলাকায়। বিয়ে ঠিক হওয়ার পরে ওই মেয়ে তার পরিবারকে জানায় সে একজনকে ভালবাসে। ওই যুবকের নাম অমল বর্মণ। তার বাড়ি সিতাইয়ের ব্রম্মচাত্রা গ্রাম পঞ্চায়েতের তামাগুড়ি এলাকায়।

Top News

তারপর তাপসের পরিবারের সাথে রিংকির পরিবারের একটা ঝামেলা হয়। সেই ঝামেলার পর থেকে ওই তাপস বর্মণের সাথে রিংকি যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। কয়েকদিন আগে তাপসের ফোন আসে রিংকির কাছে। কিন্তু রিংকি তাপসের ফোন কেটে দিয়ে মোবাইল সুইচ-অফ করে রাখে বলে অভিযোগ। তার কয়েকদিনের মাথায় রিংকির সাথে বিয়ে ঠিক হয় অমলের। তাপস সেটা জানত না। পরে রিংকির বিয়ের অনুষ্ঠান তার মাসীর বাড়িতে হচ্ছিল বলে জানতে পায় তাপস।

গতকাল রাত ১ টা নাগাদ তাপস সহ বেশ কয়েকজন তার ওই বিয়ে বাড়িতে যায়। সেখানে গিয়ে তাপসের সাথে রিংকির পরিবারের ঝামেলা হয়। সেই সময় ইন্দ্রজিৎ বর্মণ তাঁদের বাধা দিতে এসে তাকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে বলে অভিযোগ। কিন্তু সেই গুলি গিয়ে লাগে রিংকির জেঠিমা তথা ইন্দ্রজিতের মা সুধা বর্মণের কোমরের নিচে। তাকে উদ্ধার করে দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখান থেকে তাকে কোচবিহার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তার করা হয়। তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে তাকে শিলিগুড়ি রেফার করা হয়। স্থানীয় বিজেপি কর্মী প্রশান্ত বর্মণ সেটাকে নিয়ে রাজনীতি করার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ নুর মহম্মদ প্রামাণিক।

এদিন তিনি আরও বলেন,“পারিবারিক বিবাদকে রাজনৈতিক রং দিয়ে আমাকে কালিমালিপ্ত করার চেষ্টা করে ও এলাকায় বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। তাতে দলের ভাব মর্তি নষ্ট হচ্ছে এলাকায়। আসলে তিনি সিতাই বিধানসভার তৃণমূল বিধায়ক জগদীশ বসুনিয়ার কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা নিয়ে এলাকায় অশান্তির সৃষ্টি করছে বলে অভিযোগ।”

যদিও এবিষয় বিজেপি যুব নেতা প্রশান্ত বর্মণ বলেন,“পারিবারিক বিষয় বলে প্রচার করে রাজনৈতিক প্রতিহিংসাকে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছেন নুর মহম্মদ প্রামাণিক। কিন্তু সিতাই এলাকার মানুষ সেটা জানে।”