দাবি মত মেলেনি পণের টাকা, শ্বাসরোধ করে খুনগৃহবধূকে

তুষার কান্তি বিশ্বাস, ইসলামপুরঃ ফের পণের বলি হতে হল এক গৃহবধূকে। দাবি মতো পণের টাকা না মেলায় এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে খুন করে মেরে ফেলার অভিযোগ উঠল স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির সাত সদস্যের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ থানার ডালিমগাঁ গ্রামে। মৃতার নাম সুরতা বর্মন ( ২১) । মৃতা গৃহবধূর বাপের বাড়ির পরিবারের পক্ষ থেকে স্বামীসহ সাতজনের বিরুদ্ধে কালিয়াগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্তরা সকলেই পলাতক। পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রায়গঞ্জ জেলা হাসপাতালে পাঠানোর পাশাপাশি ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

Top News

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে,  কালিয়াগঞ্জের ডালিমগাঁ গ্রামের বাসিন্দা বিশ্ব রায়ের সাথে দুবছর আগে বিয়ে হয় কালিয়াগঞ্জ  শেঠ কলোনীর বাসিন্দা সুরতা বর্মনের। তাদের একটি এক বছরের সন্তানও রয়েছে। বিয়ের সময় পণ হিসেবে ৮৫ হাজার টাকা দেওয়ার পরেও বাড়তি টাকার জন্য স্ত্রী সুরতার উপর চাপ দিতে থাকে স্বামী বিশ্ব রায় সহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা। বাপের বাড়ি থেকে টাকা আনার জন্য শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালাতো বলে অভিযোগ। গতকাল রাতে সুরতার শ্বশুরবাড়ি থেকে এলাকার এক প্রতিবেশী খবর দেয় যে সুরতা মারা গিয়েছে। সেই খবর শুনে সুরতার বাপের বাড়ির লোকজন ছুটে যান কালিয়াগঞ্জের ডালিমগাঁ গ্রামে। তাঁরা গিয়ে ঘরের বিছানায় মৃত অবস্থায় পড়ে থাকে দেখেন সুরতাকে। মৃতার গলায় দাগ দেখা যায়। অভিযোগ, গৃহবধূ সুরতাকে শ্বাসরোধ করে খুন করেছে তার স্বামী বিশ্ব রায় সহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে কালিয়াগঞ্জ থানার পুলিশ।