খোঁজ নেই ১১ কাউন্সিলরের, থানায় নিখোঁজ ডাইরি করলেন পুরসভার চেয়ারম্যান, জল্পনা যোগ দিতে পারেন বিজেপিতে

শ্যাম বিশ্বাস, বনগাঁঃ বেপাত্তা পুরসভার কাউন্সিলরদের খুজতে থানায় নিখোঁজ ডাইরি করলেন পুরসভার চেয়ারম্যান। ঘটনাটি ঘটেছে বনগাঁয়। বেপাত্তা বনগাঁ পুরসভার ওই ১১ জন কাউন্সিলরের বিষয়ে বৃহস্পতিবার রাতে সাংবাদিক বৈঠক করে বিষয়টি জানান বনগাঁ পুরসভার পুরপ্রধান শংকর আঢ্য। ইতিমধ্যে, বনগাঁ থানায় নিখোঁজের অভিযোগও দায়ের করেছেন তিনি। পাশাপাশি কাউন্সিলর না থাকায় পরিষেবা পাচ্ছেন না স্থানীয়রা।

Top News

জানা গিয়েছে, বনগাঁর মহকুমা শাসকের কাছে কিছুদিন আগেই পুরসভার বর্তমান পুরপ্রধান শংকর আঢ্যর বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব পেশ করেন ওই ১৪ জন কাউন্সিলর। সেই আবেদনে পুরপ্রধানের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণেরও দাবি জানান তাঁরা। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক মহলে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। তা নিয়ে টানাপোড়েন চলছিলই। কাউন্সিলরদের সঙ্গে কথা বলে পরিস্থিতি সামলে নেওয়ার চেষ্টাও করেছিলেন পুরপ্রধান। কিন্তু তাতে কার্যত কোনও ফল মেলেনি। এরপর গত মঙ্গলবার কাউন্সিলরদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন খাদ্যমন্ত্রী তথা উত্তর ২৪ পরগনার তৃণমূলের জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। সকলের মন্তব্য শোনেন তিনি। তাঁদের দাবি লিখিত আকারে জমা দেওয়ার নির্দেশও দেন। সেই অভিযোগ রাজ্য নেতৃত্বের কাছে পাঠানোও হয়। তিনি জানান, রাজ্য নেতৃত্ব পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে। এরপর বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সম্মেলন করেন বনগাঁ পুরসভার পুরপ্রধান শংকর আঢ্য।

সাংবাদিক বৈঠকে পুরসভার চেয়ারম্যান জানান, মঙ্গলবারের পর থেকে এলাকায় দেখা মিলছে না ১১ জন কাউন্সিলরের, যারা পুরপ্রধানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব এনেছিলেন। তিনি বলেন, “শেষ কয়েকদিন এলাকার বহু মানুষ আমার কাছে এসে জানিয়েছেন তাঁরা কাউন্সিলরের দেখা পাচ্ছেন না। ফলে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে স্থানীয়দের।”

জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই বনগাঁ থানায় নিখোঁজের অভিযোগ দায়ের করেছেন পুরপ্রধান শংকর আঢ্য। কিন্তু কোথায় গেলেন এই কাউন্সিলররা? তবে কি পরিকল্পনা মাফিকই উধাও হয়ে গিয়েছেন তাঁরা? নাকি এর পিছনে রয়েছে বড়সড় কোনও রহস্য রয়েছে, তা ভাবাচ্ছে সকলকে। রাজনৈতিক মহলের একটা অংশ মনে করছে বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন ওই কাউন্সিলাররা।