৫ দিনে উত্তাল সমুদ্রে ভেসে থাকার পর উদ্ধার নিখোঁজ মৎস্যজীবী

ওয়েব ডেস্ক, ১১ জুলাইঃ মাছ ধরতে গিয়ে মাঝ সমুদ্রে উল্টে গিয়েছিল মৎস্যজীবীদের চারটি ট্রলার। চারটি ট্রলারে ৬১ জন মৎস্যজীবী ছিলেন। ৩৪ জনের খোঁজ মিললেও এখনও নিখোঁজ বাকিরা। কিন্তু মিরাক্যাল ঘটিয়ে ৫ দিন ভেসে থাকার পর জীবনযুদ্ধে জিতলেন মৎস্যজীবী রবীন্দ্রনাথ দাস। খাবার, জল এমনকি লাইফ জ্যাকেট ছাড়াই ৫ দিন সমু্দ্রে কাটিয়ে দিয়েছেন তিনি। বুধবার বেলা ১১টা নাগাদ তাঁকে উদ্ধার করা হয় বংলাদেশ থেকে।

Top News

খারাপ আবহাওয়ায় মাছ ধরতে গিয়ে রবিবার চারটি ট্রলার ডুবে গিয়েছিল বঙ্গোপসাগরে। পশ্চিমী হাওয়ায় বাংলাদেশের দিকে চলে গিয়েছিল ভারতীয় ট্রলারগুলি। সেখানেই হাঁড়িভাঙা চরের কাছে ডুবে যায়। চারটি ট্রলারে ৬১ জন মৎস্যজীবী ছিলেন। ৩৪ জনের খোঁজ মিললেও এখনও নিখোঁজ বাকিরা। এই তালিকাতেই একটা নাম ছিল রবীন্দ্রনাথ দাস। ডুবে যাওয়া ট্রলার এফ বি নয়ন এ সওয়ার হয়ে মাছ ধরতে গিয়েছিলেন তিনি। ট্রলারডুবির খবর আসতেই বাংলাদেশেও চলছিল মৎস্যজীবীদের খোঁজে তল্লাশি।

বাংলাদেশের প্রখ্যাত ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান কেএসআরএম গ্রুপের মালিকানাধীন বাংলাদেশের পতাকাবাহী জাহাজ এমভি জাওয়াদ। বুধবার বাংলাদেশ সময় সকাল ১১টার দিকে সাগরে ভাসমান বছর ৪৫- এর রবীন্দ্রকে দেখতে পান এই জাহাজের নাবিকরাই। তখনই তাঁর দিকে বয়া ও লাইফ জ্যাকেট ছুঁড়ে দেন তাঁরা। প্রায় দু ঘণ্টা চেষ্টার পর দুপুর পৌনে ১টার দিকে দিকে রবীন্দ্রনাথকে জাহাজে তুলতে সক্ষম হন এমভি জাওয়াদের নাবিকরা। মুমূর্ষ রবীন্দ্রনাথকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হয়। দেওয়া হয় পুষ্টিকর খাবার ও প্রয়োজনীয় পোশাক। পরে চট্টগ্রামের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাঁকে। এখন সেখানেই চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি।