২ বান্ধবীর চেষ্টায় বিয়ে আটকালো নবম শ্রেণীর ছাত্রীর

কার্ত্তিক গুহ, ঝাড়গ্রামঃ স্কুলের দুই সহপাঠীর উদ্যোগে বিয়ে বন্ধ হল নবম শ্রেণীর ছাত্রী মৌপ্রিয়ার। ১২ মে ওই নাবালিকা ছাত্রীর বিয়ের দিন ঠিক হয়েছিল। ঘটনাটি ঝাড়গ্রাম থানার অন্তর্গত আসনবনী গ্রামের। জানা গিয়েছে, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার গুড়গুড়ি পাল বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীতে পরে মৌপ্রিয়া। সে তাঁর মামার বাড়িতে থেকে পড়াশুনা করত। বিদ্যালয়ের অন্য পড়ুয়াদের কাছ থেকে তাঁর দুই বান্ধবী তনুশ্রী মাঝি ও লক্ষী মাঝি জানতে পরে ১২ মে তাদের বান্ধবীর বিয়ের তারিখ ঠিক হয়েছে। সাথে সাথে বিষয়টি  স্কুলের শিক্ষককে জানান। এরপর শিক্ষককে সঙ্গে নিয়ে থানায় ও বিডিও অফিসে যায়। সেখানে লিখিত অভিযোগ করে পুলিশ ও প্রশাসনকে নিয়ে হাজির হয়  মৌপিয়ার বাড়ি। মৌপিয়ার মামার কাছে  জানতে পারে যে অাগামী ২৮ শে বৈশাখ ১২ ই মে তাদের বান্ধবী মৌপ্রিয়ার বিয়েlদুই জন বান্ধবী প্রথমে স্কুলের শিক্ষক কে মৌপিয়ার বাবা পবন মহাকুড় ও তার মা ঝুমা দেবী মেয়েকে বিয়ে না দেওয়ার লিখিত মুচলেখা দেন প্রশাসনের কর্তাদের কাছে।

Top News

ঝাড়গ্রাম ব্লকের আধিকারিক অভিজিৎ কুন্ডু  বলেন,  নাবালিকা স্কুল ছাত্রীর বিয়ে দেওয়ার চেষ্টা হচ্ছিল। ওই দুই ছাত্রীর উদ্যোগে এই নাবালিকার বিয়ে আটকানো সম্ভব হয়েছে। মৌপ্রিয়ার দুই বান্ধবী তনুশ্রী মাঝি ও লক্ষী মাঝি বলে, ও পড়াশুনায় খুব ভালো। আমারা চাই সে পড়াশুনা করুক। সেজন্য তাঁর বিয়ে আটকাতে পেরে খুব ভালো লাগছে। ও এখন প্রতিদিন আমাদের সাথে স্কুলে যাবে।