গৃহবধূকে খুনের অভিযোগ, শ্মশান থেকে মৃতদেহ পাঠানো হল ময়নাতদন্তে

দক্ষিণ ২৪ পরগণা, ১৮ আগস্টঃ গৃহবধূকে খুনের অভিযোগ উঠল শ্বশুরবাড়ির লোকেদের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার বারুইপুরে। মৃত ওই গৃহবধূর নাম রীতা চক্রবর্তী(২৫)। রীতার বাপের বাড়ির লোকের অভিযোগ, শ্বশুরবাড়ির লোকেরাই খুন করেছে রীতাকে। যদিও মৃত্যুর কারণ এখনও স্পষ্ট নয়। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বারুইপুর থানার পুলিশ।

Top News

জানা গিয়েছে, ৬ মাস আগে উত্তর ২৪ পরগনার সন্দেশখালির গাববেড়িয়ার বাসিন্দা রীতা চক্রবর্তীর সঙ্গে বিয়ে হয় দক্ষিণ ২৪ পরগনার বারুইপুরের বিদ্যাধর গ্রামের বাসিন্দা সুমন চক্রবর্তীর। সুমনের সঙ্গে বিয়ের আগে থেকেই প্রেমের সম্পর্ক ছিল রীতার। রীতার বাপের বাড়ির লোকেরা জানিয়েছেন, সুমনের বাড়ি থেকে তাঁদের ফোন করে বলা হয় আপনাদের মেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছে। ওই ঘটনার খবর পেয়েই ছুটে আসেন রীতার বাপের বাড়ির লোকেরা। কিন্তু মেয়ের শ্বশুরবাড়ি এসে মেয়েকে দেখতে না পেয়ে তাঁরা ছুটে যান বারুইপুর হাসপাতালে। কিন্তু সেখানে গিয়েও মেয়ের কোনও খোঁজ পাননি তাঁরা। এরপরই তাঁরা জানতে পারেন, রীতাকে দাহ করার জন্য শ্মশানে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ঘটনার কথা জানতে পেরেই রীতার বাপের বাড়ির লোকেরা বারুইপুর থানায় খবর দেন। ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ শ্মশানে গিয়ে রীতার মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়। রীতার বাপের বাড়ির লোকেদের অভিযোগ, শ্বশুরবাড়ির লোকেরাই খুন করেছে তাঁদের মেয়েকে। আর তাই তাঁদের মিথ্যে কথা বলে, লুকিয়ে দেহ দাহ করতে নিয়ে গিয়েছিল।