আক্রান্ত বিডিও কৌশিক ভট্টাচার্যের বাড়িতে মহম্মদ সেলিম

তুষার কান্তি বিশ্বাস, ইসলামপুরঃ সন্দেশখালি ২ ব্লকের গুরুতর আহত বিডিও কৌশিক ভট্টাচার্যকে দেখতে গেলেন রায়গঞ্জের প্রাক্তন সাংসদ মহম্মদ সেলিম।

Top News

রায়গঞ্জের ভাড়া বাড়িতে বাবা মা দুই সন্তানকে নিয়ে থাকেন বিডিও কৌশিক ভট্টাচার্য। বৃহস্পতিবার দুর্নীতি আটকাতে গিয়ে এলাকার শাসক দলের পঞ্চায়েত সদস্যদের দ্বারা আক্রান্ত হন বিডিও কৌশিক ভট্টাচার্য। এসএসকেএম’এ চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। বৃহস্পতিবার এসএসকেএম থেকে রায়গঞ্জ ফিরেছেন। শুক্রবার পার্টির কর্মসূচিতে যোগ দিতে এসে মহম্মদ সেলিম যান বিডিও’কে দেখতে।

আহত বিডিও’র হাতে এবং মাথায় প্রচণ্ড যন্ত্রণা হচ্ছে। মানুষের স্বার্থে প্রশাসনিক উদ্যোগে পরিষেবা দিতে বদ্ধপরিকর বিডিও কৌশিক ভট্টাচার্য। যথেষ্ঠ সৎ নিষ্ঠাবান, দায়িত্বশীল প্রশাসক বিছানা ছেড়ে উঠে বসলেন। সেদিনের ভয়ঙ্কর ঘটনার বিবরণ দিতে গিয়ে বলেন, গরিবের কয়েক কোটি টাকা আত্মস্যাত হয়েছিল। গরিব মানুষের প্রাপ্য ৮০ লক্ষ টাকা উদ্ধার করে প্রকৃত উপভোক্তাদের মধ্যেই ফিরিয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করেছি। দুর্নীতি আটকাতে গিয়ে পঞ্চায়েতে নির্বাচিত জন প্রতিনিধিদের দ্বারা প্রাণ নাশের চেষ্টা হয়েছে সেদিন। ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে পুলিশ স্টেশন, পুলিশের সহায়তা না পেলেও ব্লকের সমস্ত স্তরের কর্মীদের অদম্য সাহস আর আন্তরিকতায় প্রাণে বেঁচে গেছি। কথাগুলি বলছেন আর তিনি হাঁফাচ্ছেন। মানুষের জন্য প্রশাসন, অন্যায় অনৈতিকতার বিরুদ্ধে বন্দুকের সামনে দাঁড়িয়েও মানুষের জন্য কাজ করে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত তিনি সে কথা মহম্মদ সেলিমকে বললেন আক্রান্ত বিডিও কৌশিক ভট্টাচার্য।

মহম্মদ সেলিম সাংবাদিকদের বলেন, রাজ্যে অরাজকতা চলছে। লুটের রাজত্ব চলছে। সেখানে দাঁড়িয়ে একজন ডব্লুবিসিএস অফিসার সততার নজির রাখলেন। এই রকম আরও অনেক সৎ নিষ্ঠাবান, যত্নবান সরকারি অফিসার এমনকি কর্মীরা আছেন বলেই তো সমাজের অসহায় মানুষেরা সহায়তা পাচ্ছেন। আহত বিডিও’র দ্রুত আরোগ্য কামনা করেন তিনি।