পণের দাবিতে অত্যাচার, খুনের অভিযোগ স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির বিরুদ্ধে

বিশ্বজিৎ মণ্ডল, মালদা: পণের দাবিতে ফের গৃহবধুর হত্যা করার অভিযোগ উঠল শ্বশুর বাড়ির বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে মালদা শহরের বিশ্বনাথ মোড় এলাকার নতুন পল্লিতে। ওই ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে ওই গৃহবধুর মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠান। এই ঘটনায় এদিন বিকেলে মেয়ের স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ির ৫ সদস্যের বিরুদ্ধে ইংরেজবাজার থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন মৃত বধূর মা। অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ তদন্ত শুরু করলেও এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।

Top News

পুলিশ সুত্রে জানা যায়, মৃত বধূর নাম তনুজা মণ্ডল(৩০)। বাবার বাড়ি মালদা শহরের বিশ্বনাথ মোড় এলাকার নতুন পল্লিতে। বাবা পতিত পাবন দাস অনেকদিন আগেই মারা গিয়েছেন। একমাত্র দাদা মানস দাস রেল পুলিশকর্মী। বর্তমানে শিলিগুড়িতে কর্মরত। দীর্ঘদিন প্রেমের পর ২০০৯ সালের ২৩ নভেম্বর সামাজিকভাবে এলাকারই মণ্ডল পাড়ার বাসিন্দা নীহার মণ্ডলকে বিয়ে করেন তনুজা। নীহার শহরের একটি বেসরকারি নার্সিং হোমে রিসেপশনিস্টের কাজ করেন। তাঁদের একটি ছেলে ও একটি মেয়েও রয়েছে। প্রতিদিন তাকে মারধোর করত, আর টাকা পয়সা আনার চাপ দিত বলে অভিযোগ। তারপরে তাকে আজ সকালে ঝুলন্ত অবস্থায় তাঁর দেহ ঘর থেকে উদ্ধার করা হয়। অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে নির্দিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করে শুরু করা হয়েছে। অভিযুক্তদের দ্রুত গ্রেফতার করা হবে। তবে তনুজা মণ্ডলের মৃত্যুর সঠিক কারণ ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পরেই জানা যাবে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।