আলিপুরদুয়ারের আদিবাসী অধ্যুষিত এলাকায় বিনা কর্ষণে গম, সরিষা চাষ

বটু মহন্ত, চান্দামারী: উত্তরবঙ্গ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে আলিপুরদুয়ারের আদিবাসী অধ্যুষিত এলাকায় বিনা কর্ষণে গম ও সরিষা চাষ করা হচ্ছে। মঙ্গলবার আলিপুরদুয়ার ২ নং ব্লকের চকোয়াখেতি এলাকায় জিরোটিলেজ পদ্ধতিতে গম ও সরিষা চাষ শুরু হল। আদিবাসী অধ্যুষিত ওই এলাকার কৃষিক্ষেত্রে মানোন্নয়ন ও চাষিদের আর্থিক উন্নতির কথা মাথায় রেখে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। অষ্ট্রেলিয়া সরকারের একটি প্রকল্পের মাধ্যমে জিরোটিলেজ পদ্ধতিতে এই কৃষিকাজ উত্তরবঙ্গ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের তত্ত্বাবধানে শুরু করা হল। এই কৃষি প্রকল্পের দেখভালের দায়িত্ব প্রদান করা হয়েছে কোচবিহারের সাতমাইল সতীশ ফার্মাস ক্লাবকে। এদিন উত্তরবঙ্গ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শস্য বিজ্ঞানের অধ্যাপক বিপ্লব মিত্র ও জল সংরক্ষণ বিভাগের অধ্যাপক রূপক দাস সহ অন্যান্য আধিকারিকগণ চকোয়াখেতি এলাকায় গম ও সরিষার বীজ বপন করেন। সাতমাইল সতীশ ক্লাব তথা কোচবিহার ফার্মাস ক্লাবের সম্পাদক অমল রায় বলেন, ” চকোয়াখেতি গ্রামে আদিবাসী কৃষকদের নিয়ে গত দুবছর ধরে কৃষি প্রযুক্তি হস্তান্তরের কাজ শুরু করেছে উত্তর বঙ্গ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়।

এবছর কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে সাত মাইল সতীশ ক্লাব এই অঞ্চলের কৃষকদের জিরোটিলেজ পদ্ধতিতে গম,সরিষা চাষের দায়িত্ব নিয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার এক প্রকল্পের মাধ্যমে এই কৃষিকাজ চলছে। বিভিন্ন ফার্মাস ক্লাব ও কৃষি দপ্তরের সহযোগিতায় প্রায় ৬ বছর ধরে জিরোটিলেজ পদ্ধতিতে ধান, গম, ভুট্টা, হচ্ছে কোচবিহার জেলায়। নতুন প্রযুক্তিতে কৃষিকাজের ক্ষেত্রে পশ্চিমবঙ্গের মধ্যে কোচবিহার জেলার অনেক উন্নতি হয়েছে। “