অটল বিহারীর মৃত্যুতে শোক সভায় বিজেপি কর্মীদের মারধর তুফানগঞ্জে

তুফানগঞ্জ , ১৭ আগস্টঃ প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর মৃত্যুতে শোক সভা চলা কালীন আজ বিজেপি কর্মীদের উপর হামলার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মীকে বেধড়ক মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। কোচবিহারের তুফানগঞ্জ মহকুমার বক্সিরহাটের শালডাঙ্গার ঘটনা।

অভিযোগ, বাড়িতে ঢুকেও বিজেপি কর্মীদের মারধর করে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতিরা। বিজেপি কর্মীদের বাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগও উঠেছে। এদিন মহিষকুঠি ১ নং গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার বিজেপি কর্মী গৌতম দাস, জিতেন বর্মন, সজল দাস, বিষ্ণু মোদক সহ কয়েকজনকে মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ। গুরুতর আহত অবস্থায় বিষ্ণু মোদককে তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সেখানে তার চিকিৎসা চলছে।

বিষ্ণু মোদক জানান, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর মৃত্যুতে আজ তারা বিজেপির পক্ষ থেকে কয়েকজন কর্মী শোক দিবস পালন করছিলেন। সবাই কালো ব্যাজ পরছিলেন, সেই সময় তৃণমূলের ১০-১২ জন ওই জায়গায় এসে ভিড় করে। পরিস্থিতি খারাপ হতে পারে আন্দাজ করে তারা বাড়িতে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। তিনি বাড়িতে চলে আসেন। জানতে পান তৃণমূলের লোকেরা ওখানে তাদের কর্মীদের মারধর করেছে। তাকেও বাড়িতে ঢুকে তৃণমূলের লোকজন মারধর করে বলে অভিযোগ।

কোচবিহার জেলা বিজেপির সভানেত্রী মালতী রাভা বলেন, “শোকসভা চলাকালীন তৃণমূলের দুষ্কৃতিরা আমাদের কর্মীদের মারধর করেছে। আমাদের কর্মীরা মারের ভয়ে দৌড়ে পালিয়ে বাড়িতে ঢুকেছিল। কিন্তু বাড়িতে ঢুকেও তাদের মারধর করেছে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতিরা। প্রয়াত প্রাক্তন প্রধান মন্ত্রীর এখনও অন্ত্যেষ্টি হয় নি। খবর পেয়ে মুখ্যমন্ত্রী তাকে শ্রদ্ধা জানাতে গিয়েছেন। আর তার কর্মীরা বিজেপি কর্মীদের পেটাচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গে আইন কানুনের অবনতি হয়েছে। পশ্চিম বঙ্গের রাজ নীতিতে কি পরিমাণ সন্ত্রাস হচ্ছে তা কোচবিহারবাসী বুঝতে পারছেন।”