স্ত্রীর মুখে অ্যাসিড দেওয়ার অপরাধে গ্রেপ্তার স্বামী ও শাশুড়ি

জলপাইগুড়ি, ৩ অক্টোবর: পরকীয়া সন্দেহে নিজের স্ত্রীর মুখ  অ্যাসিড দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তার স্বামী ও শাশুড়ি। ওই অভিযোগ পেয়েই পুলিশ তাদেরকে গ্রেপ্তার করে। জানা গেছে, প্রতিবেশী মহিলার সাথে স্বামীর অবৈধ সম্পর্কের প্রতিবাদ করায় গত ২৭ আগস্ট রাত ১ টা নাগাদ স্বামী মমিরুদ্দিন,শাশুড়ি মমিনা বেওয়া ও প্রতিবেশী মহিলা সহ আরও একজন মিলে সাবিনার মুখে অ্যাসিড ঢেলে দেয় বলে অভিযোগ। গুরুতর জখম অবস্থায় সাবিনাকে উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি করা হয়।

জলপাইগুড়ি মহিলা থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি সুনন্দা সোনার জানান, গত ১৫ সেপ্টেম্বর ছাড়া পাওয়ার পর সাবিনা বাপের বাড়ি ঘোকসাডাঙায় চলে যায়। এরপর সোমবার রাতে জলপাইগুড়ি মহিলা থানায় এসে স্বামী, শাশুড়ি, সহ মোট ৪ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ পেয়ে গতকাল রাতেই মমিরুদ্দিন ও মমিনাকে গ্রেফতার করা হয়। বাকি দুই অভিযুক্তর খোঁজে তল্লাশি চলছে। ধৃতদের আজ জলপাইগুড়ি আদালতে তোলা হয়। অ্যাসিড হামলার কথা স্বীকার করে অভিযুক্ত মমিরুদ্দিনের পাল্টা অভিযোগ, “আমার স্ত্রীর অন্য পুরুষের সঙ্গে সম্পর্ক ছিল। বহুবার মানা করেছি। কথা না শোনায় আমি অ্যাসিড ছিটিয়ে দিয়েছি।”

পরিবার সুত্রে জানা যায়, ২০১১ সালে কোচবিহার ঘোকসাডাঙার বাসিন্দা সাবিনা খাতুনের সঙ্গে বিয়ে হয় জলপাইগুড়ির ইন্দিরা কলোনির বাসিন্দা টাইলস মিস্ত্রি মহম্মদ মমিরুদ্দিনের। অভিযোগ, বিয়ের পরেই স্বামীর অবৈধ সম্পর্কের কথা জানতে পারেন সাবিনা। শুরু হয় অশান্তি। এরই সঙ্গে পণের দাবিতেও তাঁর উপর অত্যাচার চলত বলে অভিযোগ করেছেন সাবিনা। তার পরে স্বামী ও শাশুড়ি সহ আরও কয়েকজন মিলে তার মুখে অ্যাসিড ঢেলে দেয়।

আমাদের খবর টেলিগ্রামে পেতে ক্লিক করুন নীচের লিঙ্কে:  http://t.me/khaboria24
হোয়াটস্যাপে আমাদের সাথে যুক্ত হতে এই লিংকে ক্লিক করুন:  http://bit.ly/2EOn96o

ফেসবুকে আমাদের সাথে যুক্ত হতে এই লিংকে ক্লিক করে লাইক করুন: https://www.facebook.com/khaboria24/