বিশ্বকাপে শেষ ওভারের রোমাঞ্চে আফগানিস্তানকে হারিয়ে চারে উঠে এলো পাকিস্তান

ওয়েব ডেস্ক, ৩০ জুনঃ শেষ পর্যন্ত আশা জাগিয়েও ভক্ত সমর্থকদের নিরাশ করলেন আফগানিস্তান। পাকিস্তানের কাছে ৩ উইকেটে হার নিয়ে মাঠ ছেড়েছে আফগানিস্তান। শনিবার বিশ্বকাপের ৩৫তম ম্যাচে নিজেদের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে এক দুর্দান্ত জয় তুলে নেয় সরফরাজ বাহিনী। আফগানিস্তানের স্বল্প পুঁজি  নিয়ে ব্যাট করতে নেমে শেষ দুই বল পর্যন্ত জয়ের অপেক্ষা করতে হয় পাকিস্তানকে।

Top News

এদিন টসে জিতে আফগান অধিনায়ক গুলবদিন নায়িব প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন। তবে সেভাবে বড় পার্টনারশিপ গড়তে পারেননি আফগানরা। ১৫ রানে ফেরত যান নায়িব। তিন নম্বরে নামা শাহিদি প্রথম বলেই শূন্য রানে আউট হয়ে ফেরেন। ওপেন করতে নামা রহমত শাহ ৩৫ রান করে যান। মিডল অর্ডারে আফগান স্টানিকজাই ৪২ রান করেন। একেবারে শেষ দিকে জাদরানও ৪২ রান করে আফগানিস্তানকে ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ২২৭ রানে পৌঁছে দেন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভারের দ্বিতীয় বলেই কোনও রান না করে ফিরে যান পাকিস্তানের ফখর জামান। আর এর ওপেনার ইমাম-উল-হক বাবর আজমকে সঙ্গে নিয়ে পাকিস্তানের হয়ে লড়াই শুরু করেন। দারুণ ফর্মে রয়েছে বাবর আজম। সব ভরসা তিনি থাকলেও এ দিন ৪৫ রান করেই ফিরে যান। তার আগেই ৩৬ রানে ফিরে গিয়েছেন ইমাম।

এর পর আর কেউ তেমনভাবে হাল ধরতে পারেননি। মহম্মদ হাফিজ ১৯ ও হ্যারিস সোহেল ২৭ রান করে আউট হয়ে যান। বল হাতে প্রথম থেকেই পাকিস্তানকে চাপের মুখে ফেলে দেয় আফগানিস্তান। ভরসা ছিলেন অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। তিনিও ফিরে যান মাত্র ১৮ রান করে। ১১ রান করে রান আউট হয়েযান শাদাব খান। কিন্তু শেষটা হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের। যখন সবাই আশা ছেড়ে দিয়েছে তখনই জেগে উঠল পাকিস্তানের ব্যাট। দুরন্ত লড়াই ইমাদ ওয়াসিমের। ৪৯ রানে অপরাজিত থাকলেন তিনি।

আফগানিস্তানের হয়ে দু’টি করে উইকেট নেন মুজিব উর রহমান ও মহম্মদ নবি। একটি উইকেট নেন রশিদ খান।২ বল বাকী থাকতেই পাকিস্তান ম্যাচ জেতে। এদিন জেতার ফলে পাকিস্তান সেমিফাইনালের দৌড়ে টিকে রইল। আর একটি ম্যাচ তাদের খেলতে হবে। সেই ম্যাচটা খেলে জিতে গেলে পাকিস্তানকে নির্ভর করতে হবে ভারত-ইংল্যান্ড ম্যাচ এবং বাংলাদেশ ম্যাচের ওপর। ভারত ইংল্যান্ড ও বাংলাদেশকে যদি হারিয়ে দেয়, তাহলে পাকিস্তান পরের ম্যাচ জিতলে প্রথম চারে জায়গা করে নেবে। এখন দেখার রবিবার ভারত-ইংল্যান্ড ম্যাচের ফলাফল কী হয়।