কেন্দ্রীয় বাহিনীর প্রয়োজন নেই, বুথ সামলাবে আমার বাহিনী, হুঙ্কার সেলিমের  

ওয়েব ডেস্ক, ১৪ এপ্রিলঃ পশ্চিমবঙ্গে লোকসভা ভোটের আগে থেকেই অন্যতম খবর হয়ে চলেছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। বিরোধীদের দাবি, প্রতিটি বুথেই চাই কেন্দ্রীয় বাহিনী। বিরোধীদের দাবিকে স্বীকৃতি দিয়ে দ্বিতীয় দফার ভোটে আরও বাহিনী বাড়াচ্ছে কমিশন। বাইরে থেকে রাজ্যে আসছে আরও ৪০ কোম্পানি আধাসেনা। ১০০-রও বেশি কেন্দ্রীয় বাহিনীর নিরাপত্তায় হবে দ্বিতীয় দফার ভোট। কিন্তু রায়গঞ্জের সিপিএম প্রার্থী মহম্মদ সেলিম সে সবের ধার ধারছেন না। কেন ? তাঁর দাবি, “১০০ শতাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী না থাকলেও কোনও সমস্যা নেই। আমার বুথ সামলাবে আমার কর্মী, সমর্থক বাহিনী।”

Top News

উল্লেখ্য, দ্বিতীয় দফায় ১৮ এপ্রিল ভোট রায়গঞ্জে। রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রে এবার চতুর্মুখী লড়াই। একদিকে গতবারের সাংসদ তথা সিপিআইএম প্রার্থী মহম্মদ সেলিম, অন্যদিকে কংগ্রেস প্রার্থী দীপা দাসমুন্সি। তৃণমূল প্রার্থী হিসেবে দাঁড় করিয়েছে ইসলামপুরের ডাকসাইটে বিধায়ক কানাহাইয়া লাল আগরওয়ালকে। বিজেপি প্রার্থী করেছে দেবশ্রী চৌধুরীকে। তবে মূল লড়াইটা যে দীপা দাসমুন্সি ও মহম্মদ সেলিমের মধ্যে তা স্পষ্ট। প্রচারে অন্যান্য প্রতিদ্বন্দ্বীদের থেকে খানিকটা আগেই নেমেছেন সেলিম।

 নিজের কেন্দ্রের বিভিন্ন বিধানসভায় মিছিল, মহামিছিল, বাইক মিছিলকে হাতিয়ার করে প্রচার সারছেন সিপিআইএম প্রার্থী তথা পলিটব্যুরো সদস্য মহম্মদ সেলিম। এদিন হেমতাবাদ বিধানসভা কেন্দ্রে মহম্মদ সেলিমের সমর্থনে মিছিলে যুব সম্প্রদায়ের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। আর সেই ভিড় দেখেই এই মন্তব্য করেন বাম প্রার্থী। দ্বিতীয় দফায় ১৮ এপ্রিল ভোট হবে রায়গঞ্জে। যদিও দ্বিতীয় দফার জন্য আরও ৪০ কোম্পানি আধাসেনা আসছে এরাজ্যে। যার ফলে ১০০ কোম্পানিরও বেশি কেন্দ্রীয় বাহিনীর নিরাপত্তায় হবে দ্বিতীয় দফার ভোট।