শৈত্য প্রবাহ চলছে মালদাতে, সমস্যায় ছোট্ট স্কুল পড়ুয়ারা

মালদা, ৮ জানুয়ারি: শৈত্য প্রবাহ চলছে মালদা জেলায়। হাড়হিম করা শীতে কাঁপছে মালদা শহর। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা নেমে গেছে ৬ থেকে ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। সন্ধ্যা হতেই শীতের পারদ নামছে । সঙ্গে ঠান্ডা হাওয়া। সন্ধে নামতে না নামতে শহরের বেশিরভাগ লোকজন বাড়িতে ঢুকে পড়ছেন। শীতের হাত থেকে বাঁচতে কেউ লেপের নিচে ঢুকে পরছেন বা আগুনের সামনে গিয়ে বসছেন। জেলার কোথাও সকাল ৯টার আগে সূর্যের মুখ দেখা যাচ্ছে না। সূর্য উঠলে রোদের জোর কম। বিকেল হতে না হতেই শুরু হয়ে যাচ্ছে কনকনে ঠান্ডা বাতাসের দাপট। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত প্রতিটি জায়গায় রাস্তার ধারেই মানুষকে আগুন পোহাতে দেখা যাচ্ছে। একই সঙ্গে চায়ের দোকানগুলিতে ভিড় জমে উঠছে। তবে এই ঠান্ডাতেও সকালে স্কুল যেতে বাধ্য হচ্ছে পড়ুয়ারা। কারণ, ঠান্ডা বাড়লেও স্কুলের সময় পরিবর্তন কিংবা বন্ধ থাকার সরকারি নির্দেশিকা এখনও আসেনি। হাওয়া অফিস সূত্রে জানা গিয়েছে, ঠান্ডার প্রকোপ আগামী কয়েকদিন আরও বাড়তে পারে। গতকাল মালদা শহরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৬.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিল বলে জানা গিয়েছিল।

Top News

পড়ুয়াদের অভিভাবকদের আবেদন, ছোটো বাচ্চাদের কথা মাথায় রেখে শীতের ক’দিন সকালের পরিবর্তে দুপুরে ক্লাস নেওয়া হোক। অথবা খুদেদের কথা মাথায় রেখে কয়েকদিনের জন্য সকালের স্কুলগুলিতে ছুটি ঘোষণা করা হোক। তা না হলে এই ঠান্ডায় সকালে স্কুল যেতে গিয়ে অনেক খুদে পড়ুয়াই অসুস্থ হয়ে যেতে পারে। তবে প্রবল শীত পড়লেও এখনও কোনও সরকারি নির্দেশিকা না আসায় সকালের স্কুলগুলির সময় পরিবর্তন করা হচ্ছে না বলে জানা গিয়েছে। তবে গরিব মানুষজনকে প্রবল শীতের হাত থেকে রক্ষা করতে ইতিমধ্যেই জেলা প্রশাসনের কাছে পর্যাপ্ত পরিমাণ শীতবস্ত্র এসে পৌঁছেছে। দু’একদিনের মধ্যেই সেগুলি বিলি করার কাজ শুরু হবে বলে জানা গিয়েছে।