মুর্শিদাবাদের দুই বিধানসভার উপনির্বাচনেও শাসক দলের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ

কার্ত্তিক পাত্র, মুর্শিদাবাদ: সপ্তম ও শেষ দফার লোকসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে রবিবার। ভোরের আলো ফুটতেই সেই আবহে আজ অনুষ্ঠিত হলো মুর্শিদাবাদ জেলার নওদা এবং কান্দি বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচন। কেন্দ্রীয় বাহিনীর উপস্থিতিতে এই উপনির্বাচনে ভোটারা নির্বিঘ্নে ভোট দিলেন বুথে বুথে। যদিও দু’একটা বিচ্ছিন্ন হিংসার ঘটনা ছাড়া মোটের উপর এই নির্বাচন ছিল শান্তিপূর্ণ।

Top News

অপূর্ব সরকার ও আবু তাহের খান কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিয়ে এবার বহরমপুর ও মুর্শিদাবাদ কেন্দ্র থেকে লোকসভা নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন। এই দুই নেতাই কান্দি ও নওদা থেকে পদত্যাগ করার ফলে তাদের ছেড়ে যাওয়া ওই আসন দু’টি বর্তমানে ফাঁকা। সেই কারণে আজ এই দুই বিধানসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই উপনির্বাচনে রাজ্যের শাসক দলের পক্ষ থেকে প্রার্থী হয়েছেন কান্দি পুরসভার চেয়ারম্যান গৌতম রায়, কংগ্রেসের হয়ে লড়ছেন সফিউল আলম খান, বিজেপি থেকে দাঁড়িয়েছেন সনৎ মন্ডল।

তবে এবার কান্দিতে বামেরা কোনও প্রার্থী দেয়নি। নওদা কেন্দ্র থেকে তৃণমূলের প্রার্থী হয়েছেন মুর্শিদাবাদ জেলা পরিষদের সদস্য সাহিনা মমতাজ। এখানে সুনীল মণ্ডলকে প্রার্থী করেছে কংগ্রেস, অনুপম মন্ডলকে প্রার্থী করেছে বিজেপি এবং আরএসপি-র পক্ষ থেকে প্রার্থী হয়েছেন সিরাজুল ইসলাম মন্ডল। ৭৮ নওদা রাজপুর পোড়াডাঙা অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্র ও মধুপুর অঞ্চলের একটি বুথের ২০০ মিটার দূর থেকেই ভোটারদের ভোট গ্রহণ কেন্দ্রে যেতে বাধা দেয় তৃণমূলের দুস্কৃতিরা বলে অভিযোগ করেন নওদার কংগ্রেস প্রার্থী সুনীল মন্ডল।

অন্যদিকে, নওদা বিধানসভার আলমপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৯৫ নম্বর বুথে বিজেপি এজেন্টকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে শাসকদলের কর্মীদের বিরুদ্ধে। বিজেপির তরফ থেকে অভিযোগ করা হয় তাদের ভোটারদের বুথে ঢুকতে বাধা দিচ্ছে তৃণমূল। বিজেপি এজেন্টকে বুথে ঢোকানোর সময় শাসকদলের কর্মীদের মারধরের শিকার হন বিজেপির বুথ সভাপতি সুশান্ত দাস। যদিও এই চিত্রের পাশাপাশি দেখা যায় অন্য রকম ছবিও। নওদা বিধানসভার ১১৬ নম্বর বুথে রাইপুর নতুন পাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তৃণমূল কংগ্রেস মিষ্টির প্যাকেট বিলি করে ভোটারদের মধ্যে।

যদিও তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে তারা ভোটারদের প্রভাবিত করার জন্য এই প্যাকেট বিলি করছেন। অভিযোগ ওঠে তৃণমূল কংগ্রেসকে ভোট দিলেই মিলছে এই মিষ্টির প্যাকেট। যদিও তৃণমূলের পক্ষ থেকে বিষয়টির অন্য ব্যাখ্যা দেওয়া হয়েছে। তাদের বক্তব্য তারা ভোটারদের ভোট দানের পর এই আপ্যায়ন করছেন। তাই তাদের প্রভাবিত করার বিষয়টি ঠিক না। এছাড়াও এদিন ভোটারদের জন্য তৃণমূলের পক্ষ থেকে ছিল চা-বিড়ির ব্যবস্থা। অপরদিকে নওদা বিধানসভা কেন্দ্রের পাটিকাবাড়ী ২৫৭ ও ২৫৮ নং বুথের ভোটারদেরও ভোট দিয়ে ফেরার পথে প্রত্যেককে মিষ্টির প্যাকেট দেওয়া হয় বিজেপির পক্ষ থেকে। সামগ্রিকভাবে মুর্শিদাবাদের এই উপনির্বাচন এদিন মোটের উপর ছিল শান্তিপূর্ণ।