গৃহবধুকে খুনের অভিযোগ গ্রেপ্তার শাশুড়ি

শ্যাম বিশ্বাস, বসিরহাটঃ গৃহবধূকে মারধর করে খুনের অভিযোগ শ্বশুর বাড়ির লোকের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বাগদা ব্লকের হেলেঞ্চা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার আইজঘাটা গ্রামে। জানা গেছে, ওই গৃহবধুকে তার স্বামী প্রায় চাপ দিত টাকার জন্য। তারপর থেকে তাদের পরিবারের মধ্যে একটা ঝামেলা চলতে থাকে। হঠাৎ করে গতকাল রাতে কি হয়েছে তা কেউ জানে না। তাকে স্বামীর বাড়ির লোকজন তাকে হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে তার মৃত্যু হয় বলে জানা গিয়েছে। ওই ঘটনায় মৃতের পরিবারের পক্ষ থেকে তার স্বামী সহ তিন জনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। ওই অভিযোগ পেয়েই পুলিশ একজনকে গ্রেপ্তার করে।

Top News

পুলিশ সুত্রে জানা যায়, মৃত ওই গৃহবধুর নাম তনয়া রায়। তার বাড়ি আইজঘাটা গ্রামে। জানা গেছে, কিছু টাকার জন্য তার স্বামী তাকে চাপ দিত। তারপরে এই ঘটনা ঘটেছে। মৃতের পরিবারের পক্ষ থেকে বাগদা থানায় জামাই তাপস মন্ডল, তার বাবা কানু মন্ডল ও শাশুড়ী লক্ষ্মী মন্ডলের বিরুদ্ধে রাতে বাগদা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়। অভিযোগ পেয়েই বাগদা থানার পুলিশ শাশুড়ী লক্ষ্মী মন্ডলকে গ্রেপ্তার করেছে। গৃহবধুর স্বামী ও শ্বশুর পলাতক। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

মৃতের পরিবার জানান, আইজঘাটা গ্রামের পরেশ রায়ের মেয়ে তনয়ার সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল বাগদা দেয়ালদহ গ্রামের কানু মন্ডলের ছেলে তাপস মন্ডলের সাথে। তাদের একটি ৬ বছরের ছেলে রয়েছে। তারপর আমরা শনিবার দুপুরে দেয়ালদহ গ্রাম থেকে একটি ফোন আসে যে মেয়ে অসুস্থ্য খবর শুনে বাগদা গ্রামীন হাসপাতালে গিয়ে দেখে মেয়ের নিথর দেহ পরে আছে। পরিবারের লোকের অভিযোগ,“তনয়াকে তার শ্বশুর বাড়ির লোকজন খুন করেছে। কারন তনয়ার কাছে প্রতিদিন নগদ অর্থের জন্যে তাপস প্রায় চাপ দিত। তা না পেয়ে তনয়াকে তারা মারধোর করে খুন করেন। আমরা আমাদের মেয়ের খুনিদের শাস্তি চাই। যাতে আরও কার মেয়ের সাথে এমন ঘটনা না ঘটে।”