পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি বোমা, চোপড়ার ঘটনা নিয়ে রিপোর্ট তলব কমিশনের

সত্যেন মহন্ত, চোপড়া: দ্বিতীয় দফার ভোটগ্রহণের শুরুতেই উত্তেজনা ছড়াল দার্জিলিং লোকসভা কেন্দ্রের চোপড়ায়। অভিযোগ, চোপড়ার হাতিঘিসা মোড় এলাকার ১৮০ নম্বর বুথে দখল নিয়েছে তৃণমূল আশ্রিত বহিরাগত দুষ্কৃতীরা। ভোটারদের ভোটদানে বাধা দেওয়ার পাশাপাশি মারধরও করেছে তারা। পুলিস পর্যবেক্ষককে অভিযোগ জানিয়ে কাজ না হওয়ায় এদিন পথ অবরোধ করেন গ্রামবাসীরা।

Top News

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এলাকায় চরম উত্তেজনা রয়েছে। দুষ্কৃতীদের এলাকা ছাড়া করতে লাঠি, কাঁদানে গ্যাস চালায় পুলিস। তারপর পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ও বোমা ছোড়ার অভিযোগ উঠেছে দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে। এনিয়ে রিপোর্ট তলব করলেন নির্বাচন কমিশনের বিশেষ পর্যবেক্ষক অজয় নায়েক।

এদিন সকালে থেকে দার্জিলিং লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত চোপড়ার ১৮০ নম্বর বুথে ভোটারদের ভয় দেখানোর অভিযোগ উঠেছে তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। অভিযোগ, তৃণমূলের লোকজন ভোটদানে বাধা দিচ্ছে। ভোটারদের বুথের ভিতর প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। জোড় করে ঢুকতে গেলে তাঁদের মারধর করার অভিযোগও ওঠে। এরপরই ক্ষুব্ধ ভোটাররা হাতিঘিষা মোড় এলাকায় অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায়। খবর পেয়ে এলাকায় আসে কেন্দ্রীয় বাহিনী। তুলে দেওয়া হয় অবরোধ। এই ঘটনা নিয়ে রিপোর্ট তলব করে নির্বাচন কমিশন।

প্রথমে অবরোধ তুলে দিলে পরে ফের একবার অবরোধ করে ভোটাররা। পুলিশি টহল সত্ত্বেও পরিস্থিতি হয়ে ওঠে ধুন্ধুমার। পুলিশ কর্মীদের লক্ষ্য করে বোমা, গুলি ছোড়া হয় বলেও অভিযোগ রয়েছে। শেষ পর্যন্ত আত্মরক্ষার তাগিদে লাঠিচার্জ করতে বাধ্য হয় পুলিশ।