দশ মাসের শিশুকে তুলে আছাড় মারলো মদ্যপ বাবা

Top News

মালদা, ২৯ ডিসেম্বর: বাড়ির কাজ সেরে পরিবারের অন্যান্যদের খাবার দিতে মা ব্যস্ত ছিল। আর ছোট্ট দশ মাসের শিশুটির একটাই অপরাধ ছিল তাঁর খিদার যন্ত্রণায় সে দোলানাতে কাঁদছিল। এটাই সহ্য হয়নি মদ্যপ বাবার। দশ মাসের শিশুর কান্নার অপরাধে তাঁকে দোলনা থেকে তুলে মেঝেতে আছাড় মারল পাষণ্ড বাবা। দশ মাসের শিশুটি প্রানে বাঁচলেও এখন সে আশঙ্কাজনক অবস্থায় মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি। আর শ্রীমান পিতা এখন শ্রীঘরে। ঘটনাটি ঘটেছে মালদা জেলার হবিবপুর থানার বুলবুলচণ্ডী অঞ্চলের সোলাডাঙ্গা গ্রামে। পেশায় রাজমিস্ত্রি গোরাঙ্গ সাহা। বছর দুয়েক আগে বিয়ে হয়। দশ মাস আগে একটি পুত্র সন্তান জন্ম হয়। পুনরায় তাঁর স্ত্রী পাঁচ মাসের গর্ভবতী।

তাঁর স্ত্রীর অভিযোগ, প্রতিদিনর মতোই বৃহস্পতিবার বিকেলে কাজ সেরে মদ্যপ অবস্থায় বাড়ি ফিরে আসে গৌরাঙ্গ। এবং তার স্ত্রীর কাছে খাবার চায়। বাড়ির অন্যান্য সদস্যদের খাবার দিয়ে তারপর ছেলেকে খাইয়ে তাঁকে খাবার দিচ্ছে। কারন দশ মাসের শিশুটি দোলনায় খিদের জ্বালায় কান্নাকাটি করছে। এই কথা শুনে গৌরাঙ্গর মাথা গরম হয়ে যায়। সে কোনো কিছু না বুঝে আগেই দোলনা থেকে নিজের সন্তানকে নিয়ে আছাড় মেরে মেঝেতে ফেলে দেয়। শিশুটির আওয়াজ শুনে ছুটে আসে পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা। কোনোক্রমে শিশুটিকে উদ্ধার করে প্রথমে বুলবুলচণ্ডী রুরাল হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। শিশুটি আশঙ্কাজনক থাকায় চিকিৎসকেরা তড়িঘড়ি মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করেন।

অপরদিকে এই খবর ছড়িয়ে পড়েতেই গ্রামবাসীরা অভিযুক্ত গৌরাঙ্গ সাহাকে আটক করে বেধরক মারধর দেয় এবং পরে হবিবপুর থানার পুলিশের হাতে তুলে দেয়।