গৌড়, আদিনা সহ জেলার দর্শনীয় স্থানে ভিড় উপচে পড়ল, চলল পিকনিকও

Top News

মালদা, ১ জানুয়ারি: বছরের প্রথম দিনই গৌড়, আদিনা, পান্ডুয়া সহ জেলার অন্যান্য দর্শনীয় স্থানগুলিতে মানুষের ঢল নামল। রবিবার মধ্যরাতে বাজি, ‌পটকা ফাটিয়ে বর্ষবরণেও মেতেছেন জেলার মানুষ। অনেক রাত্রি পর্যন্ত গান-বাজনা, পিকনিকের মধ্যে দিয়ে নতুন বছরকে স্বাগত জানিয়েছেন মানুষ। ২৫ ডিসেম্বর থেকে বড়দিনের উৎসব শুরু হয়েছে। তাকে সামনে রেখেই উইন্টার কার্ণিভালের আয়োজন করেছিল ইংলিশবাজার পৌরসভা। শহরের ব্যস্ততম এলাকা ফোয়াড়া মোড়ে গত ৭ দিন ধরেই চলেছে নানা ধরণের অনুষ্ঠান। তার রেশ শেষ না হতেই সোমবার জেলার সর্বত্রই পিকনিকে মজেছিল উৎসব প্রিয় মানুষেরা। শুধু মালদা নয়, আশেপাশে জেলা এমনকি মেদিনীপুর থেকেও মানুষ এসেছিলেন গৌড়ে পিকনিক করতে। সকাল থেকেই গাড়িগুলিতে মাইক বাজিয়ে পিকনিক স্পটগুলিতে ভিড় করেছিল ক্লাব,পাড়া,পরিবার,বন্ধু-‌বান্ধব সকলেই। সোমবার গৌড়ের দাখিল দরওয়াজার কাছে যেতেই লম্বা গাড়ির লাইন। একই ছবি ছিল আদিনা-‌পান্ডুয়া-‌আদিনার মৃগদাবে। পিকনিক হয় ইংরেজ বাজারের কাজল দিঘি, পুরাতন মালদার সতী নদীর পার, কালিয়াচকের গঙ্গার চর, ফরাক্কার পারেও। তবে এসব এলাকায় মূলত জেলার মানুষেরাই পিকনিক করতে গিয়েছিলেন। গৌড়-‌আদিনা-‌পান্ডুয়াতে মালদা জেলার মানুষেরা ছাড়াও ভিন জেলাগুলিতে মানুষ এসেছিলেন ডবল মজা নিতে। যেমন গৌড়ে পিকনিক করতে এসেছিলেন মেদিনীপুর থেকে আব্দুল করিম। সঙ্গে ছিলেন বন্ধু বান্ধবেরাও।

তিনি জানান, গৌড়ের কথা আমি অনেক শুনেছিলাম। আজকে এসে চাক্ষুষ হল। ভাল লাগছে। দক্ষিণ দিনাপুরের চন্দননগর থেকে এসেছিলেন চন্দন মন্ডল। তাঁর পরিবারের সদস্যদের নিয়ে। গৌড় দেখে অভিভূত হয়ে পড়েন তিনি। বলেন, বহুদিনের ইচ্ছে ছিল এখানে আসার। আমরাও যেমন দেখলাম। আমাদের পরের প্রজন্মও দেখলাম। তবে প্রচন্ড ভিড়। গাড়ি ঢুকতে পারছিল না। কোনও রকমে এসেছি। সাড়াদিন ধরে হই হুল্লোড় করে ফিরে যাব। গৌড় কলেজ থেকে একদল পড়ুয়া এসেছিল পিকনিক করতে। তাদের মধ্যে অনুমপা গাঙ্গুলি, শ্রাবণী গুপ্তরা বলেন, বছরের প্রথম দিন আমরা এখানে পিকনিক করতে এসেছি। ভীষণ ভাল লাগছে। আজকের দিনের অনুভূতিটাই আলাদা। তবে প্রচন্ড ভিড় হলেও সন্ধে পর্যন্ত কোথাও কোনও অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায় নি। সব পিকনিক স্পট মিলিয়ে প্রায় লাখো মানুষ এদিন ভিড় জমান বলে প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে। ‌